• বৃহস্পতিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২০, ১১:১০ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English

সিংগাইরে যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম, ইউপি অফিস ভাঙচুর

মোঃ সাইফুল ইসলাম তানভীর, সিংগাইর (মানিকগঞ্জ)
প্রকাশ হয়েছে : সোমবার, ১ জুন ২০২০ | ৭:৫৩ pm
                             
                                 

মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার জয়মন্টপ ইউনিয়নে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে উপজেলা প্রশাসন থেকে ঘোষিত লকডাউনকে অমান্য করে  সোমবার (১ জুন) দু’ গ্রুপের মধ্যে দফায়-দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে জয়মন্টপ নতুন বাসষ্ট্যান্ডের স্কুল মার্কেটে প্রকাশ্য দিবালোকে উপজেলা যুবলীগের সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেনকে (৩২) কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। ভাঙচুর করা হয়েছে ইউপি অফিসের দরজা-জানালা ও দু’টি মোটর সাইকেল।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, যুবলীগ নেতা আলমগীর হোসেনের ফুফাত ভাই রনির সাথে পার্শ্ববর্তী কিটিংচর গ্রামের জুয়েলের আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গত শনিবার মারধরের ঘটনা ঘটে। এরই জের ধরে পরদিন রোববার জুয়েল গ্রুপের লোকজনের সাথে বাগ্বিতন্ডার এক পর্যায়ে প্রতিপক্ষ গ্রুপের দুলাল ড্রাইভারকে মারধর করে। এ নিয়ে উভয় গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা চলছিল। সোমবার (১জুন) সকাল ১১ টার দিকে জুয়েল গ্রুপের লোকজন যুবলীগ নেতা আলমগীর হোসেনকে কুপিয়ে জখম করে। এ খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে আলমগীর গ্রুপের লোকজন ইউপি অফিসের দরজা-জানালা ভাঙচুর করে। সেই সঙ্গে জয়মন্টপ উচ্চ বিদ্যালয়ের গেইটে রাখা বিদ‍্যালয়ের শিক্ষক শামীম কাজীর ১ টি পালছার ও বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য মহিদুর রহমানের ১টি এফ.জেড মোটর সাইকেল ভাঙচুর করে। এ সময় চারদিকে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।

আলমগীর অভিযোগ করে বলেন, চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে মিটিং শেষে ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি মনজুরুল করিম ও নূর মোহাম্মদের নেতৃত্বে আমার ওপর হামলা করা হয়। এ সময় আমাকে দা দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে তারা। বর্তমানে তিনি সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলেও জানান।

জয়মন্টপ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইঞ্জিঃ শাহাদৎ হোসেন বলেন, আমি জয়মন্টপ উচ্চ বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির মিটিংয়ে থাকাবস্থায় জুনিয়র দু’গ্রুপের মধ্যে মারধরের জেরে আমার অনুপস্থিতিতে ইউপি অফিসে হামলা করে দরজা জানালা ভাঙচুর করা হয়েছে। এ ঘটনায় মনজুরুল করিম ও নূর মোহাম্মদের সম্পৃক্ততা ছিল না দাবী করে চেয়ারম্যান আরো বলেন, নির্দোষ নূর মোহাম্মদ আলমগীর হোসেনের বাবার মারধরের শিকার হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

 এ ব্যাপারে সিংগাইর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুস সাত্তার মিয়া বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আছে। মামলা প্রক্রিয়াধীন।

উল্লেখ্য, গত ২৭ মে জয়মন্টপ বাজারের মুদি ব্যবসায়ী বাদল সাহার করোনা সংক্রমণে মৃত্যু  হওয়ায় ওই ইউনিয়নকে উপজেলা প্রশাসন লকডাউন ঘোষনা করেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 244
    Shares


এই বিভাগের আরো খবর