• রবিবার, ০৭ মার্চ ২০২১, ০৭:৩৯ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English
শিরোনাম
সাতক্ষীরায় ৪০০ বছরের পুরাতন স্বর্ণ স্বদৃশ্যের রাধা-রানী মুর্তি উদ্ধার শ্যামনগরে মাদক ইভটিজিং বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে থানা পুলিশের সভা সাতক্ষীরা প্রেসক্লাব নির্বাচনে সম্মিলিত সাংবাদিক ঐক্য পরিষদের বাপী-সুজন প্যানেল বিজয়ী চুয়েটে তিনদিনব্যাপী পুরকৌশল বিষয়ক আন্তর্জাতিক কনফারেন্স সম্পন্ন তাহিরপুর সীমান্তে মদসহ ১ ব্যবসায়ী গ্রেফতার দেশের নদ-নদীর প্রাণ ফিরিয়ে আনার কাজ করে যাচ্ছে সরকার -পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী প্রতারণা মামলায় গ্রেফতার নাচোলের মিলন ইবি’র ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের নতুন সভাপতি নিয়োগ সিংগাইরে স্ত্রী হত্যার দায় স্বীকার করলেন স্বামী রামগঞ্জে আগুনে ক্ষতিগ্রস্থ ১৫ পরিবারের পাশে কেন্দ্রীয় যুবদল নেতা ইমাম হোসেন

সুন্দরগঞ্জে অবরুদ্ধ অসহায় পরিবারে হামলা

আক্তারবানু ইতি, সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা)
প্রকাশ হয়েছে : সোমবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২১ | ৯:৫৩ pm
                             
                                 

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ পৌরশহরে একটি অসহায় পরিবারকে দীর্ঘদিন ধরে অবরুদ্ধ করে রেখেছে প্রভাবশালীরা। এর প্রতিকারার্থে বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করায় নানা সময়ে হামলা চালিয়ে মারপিটের ঘটনা অব্যহত রেখেছে বলে ভুক্তভোগী পরিবারের অভিযোগ রয়েছে।
বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, পৌরশহরের বামনজল মহল্লার মীরগঞ্জহাট সংলগ্ন রাধারামন কর্মকারের ছেলে প্রভাত চন্দ্র কর্মকারের পরিবারকে দীর্ঘদিন ধরে একঘরে অবরুদ্ধ রেখেছে ভাই প্রভাবশালী রনজিত চন্দ্র কর্মকার, সুশান্ত চন্দ্র কর্মকার তাদের লোকজন। এর প্রতিকার চেয়ে প্রভাত চন্দ্রের স্ত্রী মুক্তা রানী উপজেলা নির্বাহী অফিসার, জেলা পুলিশ সুপারসহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেন। এতে ক্ষীপ্ত হয়ে প্রভাবশালী রনজিত চন্দ্র কর্মকার ও তাদের লোকজন প্রতিনিয়তই গভীর রাতে অসহায় প্রভাত চন্দ্রের পরিবারে হামলা চালিয়ে ব্যাপক নির্যাতন করে। প্রতিপক্ষ রনজিত কর্মকার গংয়ের অত্যাচারে প্রাণে বাচাতে একমাত্র ছেলেকে অন্যত্রে রেখেছেন প্রভাত চন্দ্র প্রভাত চন্দ্রের একমাত্র শয়নঘর সংযুক্ত রান্নাঘরের একাংশ কেটে নতুন করে পূর্ব ও দক্ষিণ পার্শ্বে প্রাচীর নির্মাণ করেছে রনজিত গং।ফলে, মাত্র আড়াই শতক জমিতে নির্মিত ঘরেই পরিবার-পরিজন নিয়ে অবরুদ্ধ জীবন-যাপন করছেন প্রভাত চন্দ্র। আগে থেকেই উত্তর ও দক্ষিণ পার্শ্বে নির্মিত অন্যের দেয়াল ও প্রাচীর থাকায় এখন ৪ দেয়ালে অবরুদ্ধ প্রভাত চন্দ্র পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করছেন। এসব কথা জানিয়ে প্রভাত চন্দ্র ও তার স্ত্রী মুক্তা রানী বলেন, বর্তমানে তাদের বাড়িতে বাইরে থেকে বাড়িতে ঢোকা বা বাড়ি থেকে বাইরে বের হবার কোন উপায় নেই। ইউএনও বরাবরে যে অভিযোগ করেছি তা নিস্পত্তির জন্য পৌরসভার কাউন্সিলর সামিউল ইসলামের কাছে আছে। তবে, এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে এসআই জাহাঙ্গীর আলম এসে তাৎক্ষণিকভাবে দেয়াল নির্মাণে নিষেধ করে গেছেন। কিন্তু, আমাদের কোন উপকারে আসেনি। দেয়াল টপকীয়ে তো আর বাড়িতে ঢোকা-বারা সম্ভব নয়। আর পুলিশ সুপারের কাছে দায়ের করা অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্তের জন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এসআই কমলমোহন চাকী এসে আমাদের বাড়িতে ঢুকতে না পেয়ে চলে গেছেন। এ নিয়ে কথা হলে রনজিত চন্দ্র ও তার ছেলে সঞ্জিত চন্দ্র কর্মকার, ভাই সুশান্ত চন্দ্র কর্মকার প্রভাত চন্দ্র কর্মকারের সঙ্গে সম্পর্ক অস্বীকার করে বলেন, তারা তাদের জায়গায় প্রাচীর নির্মাণ করছেন। এতে প্রভাত চন্দ্র একঘরে আবদ্ধ হলেও তাদের কিছু আসে-যায় না।
পৌরসভার সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কাউন্সিলর সামিউল ইসলাম বলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় থেকে আমার উপর অর্পিত দায়িত্ব পালনে উভয়পক্ষকে ডেকেছি। নির্বাচনী কাজে ব্যস্ত থাকায় কিছুটা বিলম্ব হলেও সুষ্ঠু সমাধানের চেষ্টা করছি।
থানার নিরস্ত্র পুলিশ পরিদর্শক (ওসি, তদন্ত) বলেন, বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 3
    Shares


এই বিভাগের আরো খবর