• রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ০৯:১৪ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English
শিরোনাম

রাজারহাট ইউপি চেয়ারম্যানকে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে নোটিশ

শহিদুল ইসলাম, রাজারহাট (কুড়িগ্রাম)
প্রকাশ হয়েছে : মঙ্গলবার, ৬ এপ্রিল ২০২১ | ৫:৪৬ pm
                             
                                 

কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলার সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ভূয়া প্রকল্পে সরকারি টাকা আতœসাত অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় তাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ জারী করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। স্থানীয় সরকার বিভাগের উপসচিব মোঃ আবুজাফর রিপন ১০কার্যদিবসের সময় দিয়ে এই নোটিশ জারী করেন।
জানা গেছে,এক বছরের ব্যবধানে গত২০১৮-২০১৯ইং অর্থ বছরে এলজিএসপি প্রকল্পের আওতায় ৯লাখ ৫৮হাজার ৩৯৪ টাকায় রাজারহাট উপজেলা সদরের মেকুরটারী মৌজার সেকেন্দার আলীর বাড়ির সামন থেকে আপ্তার হোসেনের বাড়ির সামন পর্যন্ত রাস্তা আরসিসি কাজ এবং ২০১৯-২০২০ইং অর্থ বছর কাগজে কলমে একই রাস্তায় উপজেলা এলজিইডি’র এডিপি প্রকল্পের আওতায় ৬লক্ষাধিক টাকার অপর একটি প্রকল্প দেখানো হয়। এবিষয়ে একই রাস্তার নামে দু’টি সরকারি প্রকল্প দেখিয়ে অর্থ আতœসাত ও ওই রাস্তার ইট তুলে সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান এনামুল হকের বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠে। পরে জেলা প্রশাসকের নির্দেশে কুড়িগ্রামের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট সুজাউদ্দৌলা ঘটনার সত্যতা পেয়ে তদন্ত প্রতিবেদন দখিল করেন। এরপ্রেক্ষিতে স্থানীয় সরকার,পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপসচিব মোঃ আবুজাফর রিপন স্মাক্ষরীত পত্রে রাজারহাট ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এনামুল হককে পত্র প্রাপ্তির ১০কার্যদিবসের মধ্যে কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে স্থানীয় সরকার বিভাগে জবাব দাখিলের নোটিশ জারী করেন। নোটিশে কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসককে উক্ত চেয়ারম্যানের জবাব সংগ্রহ করে ১০কার্যদিবসের মধ্যে মতামত সহ প্রতিবেদন প্রেরন করতে বলা হয়েছে।
এদিকে এলজিএসপি’র আরো একটি প্রকল্পে রাজারহাট ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান কর্তৃক ৪লক্ষ ৯২হাজার টাকা আতœসাতের অভিযোগ দাখিল করেছেন উপজেলা সদরের হরিশ্বর তালুক উচ্চ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। রাজারহাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রেজাউল করিম,সাবেক প্রধান শিক্ষক আব্দুল লতিফ মোল্লা ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য শহিদুল ইসলাম বাবু’র যৌথ স্বাক্ষরে দাখিলকৃত অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে,উক্ত বিদ্যলয়ে এলজিএসপি’র দ্বিতীয় কিস্তির বরাদ্দ বাবদ ৪লক্ষ ৯২হাজার টাকা আসলেও তারা পাননি।
এবিষয়ে সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান এনামুল হক কারন দর্শানোর নোটিশ জারির সত্যতা স্বীকার করে জানান,প্রথমে একই রাস্তার নামে দু’টি প্রকল্প দেখানো হলেও পরে একটি প্রকল্পে রাস্তার নাম পরিবর্তন করে অন্য রাস্তার কাজ করা হয়েছে। হরিশ্বর তালুক উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিযোগ হওয়ার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, চিঠি পেলে জবাব দাখিল করবো।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরে তাসনিম রাজারহাট সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান এনামুল হকের বিরুদ্ধে শোকজ নোটিশ জারীর সত্যতা স্বীকার করে বলেন,হরিশ্বর তালুক উচ্চ বিদ্যালয়ে এলজিএসপি প্রকল্পের টাকা আতœসাতের অভিযোগ এখনো দেখিনি,পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 13
    Shares


এই বিভাগের আরো খবর