• শনিবার, ০৬ মার্চ ২০২১, ০৫:৫২ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English
শিরোনাম
রামগঞ্জে আগুনে ক্ষতিগ্রস্থ ১৫ পরিবারের পাশে কেন্দ্রীয় যুবদল নেতা ইমাম হোসেন শাহজাদপুরে শুরু হয়েছে ঐতিহ্যবাহি বাউত উৎসব ফুলবাড়িয়ার সকল মুক্তিযোদ্ধার কবর পাকা করে দিবেন আওয়ামীলীগ নেতা তপন তালুকদার ছাতকে খাল খনন প্রকল্পে অনিয়মের অভিযোগ চমেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত রাজনীতি নিষিদ্ধ কোম্পানির প্রতিনিধিদের দৌরাত্ম্য বেড়েছে মণিরামপুর হাসপাতালে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসাবে জনপ্রিয়তার শীর্ষে মোহাম্মদ জাবেদ হোসেন কেশবপুরে পিকনিকের বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে শিশুর মৃত্যু জামালপুর হেল্পলাইনের ১০ হাজার মেম্বার পূর্তি উদযাপন আশাশুনিতে নবাগত ইউএনও’র যোগদান

কাঙ্খিত আলু উৎপাদন ব্যাহত!

আক্কেলপুরে বীজ আলুতে ভাইরাস!

মো: সকেল হোসেন, আক্কেলপুর, জয়পুরহাট
প্রকাশ হয়েছে : সোমবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০২০ | ৬:৩১ pm
                             
                                 

জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে বীজ আলু রোপনে এক মাস পার হলেও আশানুরূপ আলু ধরেনি গাছে। এ নিয়ে ক্ষতি ও দুঃচিন্তায় দিন পার করছে সাধারণ কৃষকরা।

জানা গেছে, উপজেলার রুকিন্দীপুর ইউনিয়নের আওয়ালগাড়ী গ্রামের প্রায় অর্ধ শতাধিক কৃষক, পৌর সদরের কলেজ বাজারের মেসার্স বেলাল ট্রেডাসের মালিক বেলালের থেকে বেশি দামে বীজ আলুর কিনে প্রায় ১৫০ বিঘা জমিতে আলু রোপন করেছে। কিন্তু আলু রোপনের এক মাস পার হলেও এখনো দেখা মিলেনি আলু গাছের কাঙ্খিত আলু। জমির বেশিভাগ আলুর গাছ রোগাক্রান্ত। এতে ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছে সাধারন কৃষকরা।

আওয়ালগাড়ী গ্রামের ফরিদ নামে কৃষক বলেন, বীজ ব্যবসায়ী বেলাল আমাকে বলেছিল মুন্সীগঞ্জের ভালো আলু দিবো, কিন্তু বাজারের দাম থেকে আমাকে একটু বেশি দাম দিতে হবে। আমি তার কথা বিশ^াস করে ৩৩’শ টাকা বস্তা আলু কিনে আমার দুই বিঘা জমিতে রোপন করি। আমার মোট খরচ পড়েছে এক লক্ষ পাঁচ হাজার টাকা। আলু রোপনের পড় অনেক দিন হলেও আমার জমির আলু গাছে শত করা দশটা গাছে ধরছে বাকি গাছে আলু ধরেনি। আমি ঋন দেনা করে আলুর জমিতে খরচ করেছি এখন এতো গুলো টাকা কই থেকে পরিশোধ করব।

আওয়ালগাড়ীগ্রামে প্রায় ৫০জন ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক অভিযোগ করে বলেন, আক্কেলপুর কলেজ বাজারে বীজ ব্যবসায়ী রেজাবুল করিম বেলালের কাছ থেকে বেশি দামে আলুর বীজ কিনে প্রায় ১৫০ বিঘা জমিতে বপন করেছি। জমিতে বপনের এক মাস পর হলেও আলুর গাছ গজালেও অধিকাংশই রোগাক্রান্ত। আলুর গাছ গুলোতে একটিও আলুর ধরেনি। খারাপ বীজ গুলো দিয়ে জেনে শুনে আমাদের প্রতারনা করেছ। আমরা এর বিচার ও ক্ষতি পূরণ চাই।

এ ব্যাপারে বীজ ব্যবসায়ী বেলাল বলেন, আমি মুন্সীগঞ্জে সবচেয়ে ভালো আলু কৃষকদের কাছে বিক্রি করি, কয়েক বছর থেকে, কখনই এমন হয়নি বীজের। হঠাৎ এমন হওয়ায় হতবাক আমি। কৃষদের অভিযোগে কৃষি অফিসের লোকজনকে নিয়ে জমিতে গেলে তারা বলে আলুর ভাইরাসের কারণে এমন হয়েছে। আলুর ভাইরাস হলে তো, আমার কিছু করার নাই।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম বলেন, বীজ আলুতে ভাইরাস থাকার কারণে আলু ক্ষেতের এমন অবস্থায় হয়েছে। কৃষকের ক্ষতি কমাতে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন


এই বিভাগের আরো খবর