• রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ০১:২২ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English
শিরোনাম
ঘাটাইলের দেওপাড়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হেপলুর উদ্যোগে মাস্ক বিতরণ মাগুরায় করোনা প্রতিরোধে এমপি শিখরের অনুদানে মাস্ক ও স্যানিটাইজার বিতরণ শ্যামনগরে দুই দিনে করোনা টিকার ২য় ডোজ গ্রহণ করলেন ২১০জন শ্যামনগরে মোবাইলকোটে প্রায় আটহাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান মাদারীপুরে মেজর ও মেরিন অফিসার পরিচয় দিয়ে প্রতারনার সময় ৩জন আটক করোনায় মাদারীপুরের শিবচরে এক ব্যাক্তির মৃত্যু মণিরামপুরে করোনা নির্দেশনা না মানায় জরিমানা তাহিরপুরে বালু উত্তোলনে বাঁধা দেয়ায় বালু খেকোদের মারপিটে এক ব্যক্তি আহত ‘২০০ টাকার জন্য খুন করেছি’ ঘাতক বন্ধুর স্বীকারোক্তি সাতক্ষীরায় দিন-দুপুরে বন্ধুকে জবাই করে হত্যা

জ্বালানী ও মাটির ব্যবহার ছাড়াই

দিনাজপুরে সর্বপ্রথম গড়ে উঠেছে পরিবেশবান্ধব ব্রিকস ইন্ড্রাস্ট্রি

প্রদীপ রায় জিতু, দিনাজপুর
প্রকাশ হয়েছে : শনিবার, ৩ এপ্রিল ২০২১ | ৭:০৯ pm
                             
                                 

জার্মান প্রযুক্তিতে দিনাজপুর সদরের লালবাগ বাধ এলাকায় নদী ও কৃষি জমির পাশেই গড়ে তোলা হয়েছে পাথর গুড়া ও সিমেন্ট দিয়ে অত্যাধুনিক ইট তৈরির কারখানা। ৩ এপ্রিল শনিবার সরেজমিনে দেখা যায়, জ্বালানি ও মাটির ব্যবহার ছাড়াই ইট তৈরিতে ব্যবহার করা হচ্ছে দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়ার পাথর, পঞ্চগড় এর নুড়ি পাথর, পাথরের গুড়া, সিলেকশন সেন্ড, সিমেন্টসহ বেশকিছু উপকরণ।
শ্রমিকরা কারখানার পাশে স্তুব করা পাথর, সিমেন্ট, সিলেকশন সেন্ড ট্রলিতে এনে হপারে ঢেলে দেয়। পরে মিকচার মেশিনে অন্যান্য উপকরণ মিশ্রিত করে কনভেয়ার বেল্টের মাধ্যমে ভাইব্রো মাল্টি ক্যাভিটি মোল্ডিং মেশিনের মাধ্যমে তৈরি করা হয় ইট।
মাত্র কয়েক মিনিটের ব্যবধানে সারি সারি ভাবে মেশিন থেকে বেড়িয়ে আসে পরিবেশবান্ধব ব্রিকস। দৈনিক ২০ হাজার ব্রিকস, ব্লক শ্রমিকরা কারখানার পাশেই সংরক্ষণ করেন বিক্রির জন্য। এ অত্যাধুনিক ইট ক্রয়ে দূর-দূরান্ত থেকে ছুটে আসছেন অনেকে। অন্যদিকে পরিবেশ দূষণমুক্ত এ কারখানায় কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হওয়ায় খুশি শ্রমিকরা।
গ্রীন বেরী ব্রিক্স ইন্ড্রাস্ট্রি লিমিটেডের পরিচালক গালিব জানান, পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় জ্বালানি, মাটির ব্যবহার ছাড়াই তৈরি করা হচ্ছে অত্যাধুনিক ইট। কারখানাটিতে এখন অর্ধশত মানুষ কাজ করছে। সরকারি নির্দেশনা মানা হলেই এ ধরনের উদ্যোগে এগিয়ে আসবে অনেকে। রক্ষা হবে উর্বর জমি ও বায়ু মন্ডলের দূষণ। এছাড়াও এই ব্রিকস দিয়ে বাড়ী নির্মান করলে ৪০% পর্যন্ত নির্মান খরচ কমানো সম্ভব। এ ছাড়া তিনি জানান, ২ শিফটে ২০ জন করে কাজ করে শ্রমিকরা। এ ছাড়া ৪ জন ইঞ্জিনিয়ার রয়েছে। এই অটোমেটিক মেশিনের মাধ্যমে উন্নত বিশ্বে যা তৈরি হয় এখানেই তা তৈরি করা যায়।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 3
    Shares


এই বিভাগের আরো খবর