• বুধবার, ১২ মে ২০২১, ০৭:৫৭ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English

চট্টগ্রামে শুরু হলো সিএমপি বিদ্যানন্দ ফিল্ড হাসপাতাল

মোঃ সিরাজুল মনির, চট্টগ্রাম
প্রকাশ হয়েছে : বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১ | ১২:০০ am
                             
                                 

করোনা রোগীদের চিকিৎসায় দ্বিতীয় বারের মতো শুরু হলো সিএমপি-বিদ্যানন্দ ফিল্ড হাসপাতাল। নগরের সাগরিকা রোডস্থ প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভবনে হাসাপাতালটি স্থাপন করছে দেশের শীর্ষস্থানীয় স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান ‘বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন’।
৭০ শয্যা বিশিষ্ট এই হাসপাতালটি আজ মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) উদ্বোধন করেন সমাজবিজ্ঞানী প্রফেসর ড. অনুপম সেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্রগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর। এই হাসপাতালে সার্বিক সহযোগিতায় আছেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ ও আবাসিক সহযোগিতা দিচ্ছে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়।

এর আগে গত বছরের জুলাই মাসে করোনা রোগের চিকিৎসায় পতেঙ্গায় প্রথম ১০০ শয্যা বিশিষ্ট ফিল্ড হাসপাতাল গড়ে তুলে বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন।

উদ্বোধকের বক্তব্যে ড. অনুপম সেন বলেন, ‘বিদ্যানন্দ মানবতার সেবায় অনুকরণীয় দায়িত্ব পালন করছে এবং করোনার সংকট মোকাবেলায় স্থাপিত কোভিড ফিল্ড হাসপাতাল একটি মাইলফলক হয়ে থাকবে।

তিনি বলেন, ‘দরিদ্র মানুষ যেন এই হাসপাতালে বিনামূল্যে সেবা পায় সেজন্য প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের বিল্ডিংটি বিদ্যানন্দকে প্রদান করা হয়েছে। এমন উত্তম কাজে চট্টগ্রামবাসীকে এগিয়ে আসতে হবে, যেনো দুস্থ করোনা রোগী সহজে চিকিৎসা সেবা পায়।

প্রধান অতিথি সিএমপি কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর বলেন, ‘এ হাসপাতালের পাশে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ থাকবে। সকল প্রকার সহযোগিতা প্রদান করা হবে এই হাসপাতালের অগ্রযাত্রায়।’ তিনি নগরবাসীদের সহযোগিতার হাত বাড়ানোর অনুরোধ জানান। এসময় তিনি সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি ও সরকারের নির্দেশনা মেনে চলার আহ্বান জানান।

ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে স্বাগত বক্তব্য রাখেন এ হাসপাতালে কোভিড রোগী হিসেবে আইসোলেশনে থাকা বিদ্যানন্দের প্রতিষ্ঠাতা কিশোর কুমার দাশ। তিনি বলেন, ‘যতদিন করোনার আক্রমণ থাকবে ততোদিন এই হাসপাতাল চলবে।’ সবাইকে এই হাসপাতালে রোগী পাঠানোর অনুরোধ জানান তিনি।

সভাপতির বক্তব্যে শিপ্রা দাশ বলেন, ‘একজন করোনা আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসার পাশাপাশি মানসিক সুস্থতার বিষয়টি মাথায় রেখে আমরা হাসপাতালটি সাজিয়েছি। চিকিৎসা নিতে এক টাকাও গুনতে হবে না।

অনুষ্ঠান শেষে অতিথিবৃন্দ হাসপাতালে ভর্তি থাকা কিশোর কুমার দাশকে দেখতে যান।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর একেএম তফজল হক, সিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (ক্রাইম ও অপারেশন) মো. শামসুল আলম, অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) শ্যামল কুমার নাথন ও ডিসি(হেডকোয়ারটারস) আমির জাফর।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 1
    Share


এই বিভাগের আরো খবর