• সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ০২:৩৫ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English
শিরোনাম
লকডাউনের নবম দিনে সাতক্ষীরায় পুলিশের কঠোর অবস্থান ২১ জুন লক্ষ্মীপুর-২ উপ-নির্বাচন: আওয়ামী লীগের বিরামহীন প্রচারণা প্যাঁচার অভয়াশ্রম সাগরদিঘি শাহজাদপুরে ডুবো রাস্তায় বদলে গেছে লাখো মানুষের জীবনমান লক্ষ্মীপুরে পল্লী বিদ্যুৎ কর্মচারীর মৃত্যু: স্বজনদের দাবি পরিকল্পিত হত্যা সুন্দরগঞ্জে ৬ জুয়াড়ি গ্রেপ্তার শরণখোলায় ভূমি অধিগ্রহনে ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়ি এসে চেক দিলেন জেলা প্রশাসক শত বছরের পুরনো রাস্তা বন্ধ করে অন্যের জমি দখল করে রাস্তা নির্মাণের অভিযোগ বাগেরহাটে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা (অনুর্ধ্ব-১৭) গোল্ডকাপ ফুডবল টুনামেন্টের উদ্বোধন মাগুরার শ্রীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১ আহত-৩

ঠাকুরগাঁওয়ে চাহিদার সঙ্গে লিচুর দামও বেড়েছে

মো: আসাদুজ্জামান, ঠাকুরগাঁও
প্রকাশ হয়েছে : বৃহস্পতিবার, ১০ জুন ২০২১ | ৬:৫৮ pm
                             
                                 

রমজান ঈদ পের হওয়ার পর চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় গাছ থেকে লিচু নামাতে ব্যস্ত সময় পার করছেন বাগান মালিকরা। ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জ উপজেলায় ছোট-বড় প্রায় ১২০ হেক্টর জমি লিচু বাগান রয়েছে।

এ ছাড়াও বাগান থেকে লিচু কিনছেন ব্যবসায়ীরা ও আড়তদাররা। বাগানে প্রতিপিস লিচু ৪ টাকা ৫০ পয়সা দরে বিক্রি হলেও বাজারে তার দাম উঠেছে ৫ থেকে ৭ টাকা পর্যন্ত।

বাগান মালিকদের আশা, অতিরিক্ত চাহিদার কারণে লিচুর দাম আরও বাড়তে পারে। বাগান মালিকরা জানান, এখন চাহিদা বেড়েছে। দামও বাড়ছে। মাত্র ক দিনের ব্যবধানে প্রতিপিস লিচুতে ১ থেকে দের টাকা পর্যন্ত দাম বেড়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় ব্যবসায়ী ও আড়তদারা।

আড়তদাররা জানান, লিচুর কোয়ালিটি হিসেবে দাম কম বেশি আছে। এ উপজেলার লিচু পীরগঞ্জের চাহিদা পূরণ করে প্রতিদিন বিভিন্ন পরিবহনে ঢাকা, সিলেট, চট্টগ্রাম, গাজীপুর সহ দেশের বিভিন্ন জেলায় বিক্রির জন্য নেওয়া হচ্ছে । ভালো মানের প্রতিপিস লিচুর দর উঠেছে ৫ থেকে ৮ টাকা পর্যন্ত। অনাবৃষ্টির কারণে ফলন কিছুটা কম হলেও এবার দাম ভালো পাওয়ায় বাগান মালিকরা লাভবান হবেন, দাবি কৃষি বিভাগের।

পীরগঞ্জ উপজেলার কৃষি সম্প্রসারণ অফিসের উপ-সহকারি কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম বলেন, উপজেলায় অনাবৃষ্টির কারণে ফলন কিছুটা কম হলেও এবার দাম ভালো পাওয়ায় বাগান মালিকরা লাভবান হবেন।

লিচু রসালো ও পরিপূর্ন না হয়ে বাগান মালিকরা তার আগেই আড়তদারের কাছে বিক্রি করে দিচ্ছে। তারা বলেন ভারী বর্ষণ বৃষ্টির পানিতে লিচু নষ্ট হয়ে যায় এই ভয়ে। এ উপজেলায় ৩৫ জন আড়তদার আছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন


এই বিভাগের আরো খবর