• বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ০৯:৩০ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English

নৌকাতেই সন্তান প্রসব করলেন দ্বীপ ইউনিয়ন গাবুরার এক প্রসূতিমাতা

রনজিৎ বর্মন, শ্যামনগর (সাতক্ষীরা)
প্রকাশ হয়েছে : রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১২:৫৩ am
                             
                                 

সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলায় সুন্দরবন সংলগ্ন দ্বীপ ইউনিয়ন গাবুরার এক প্রসূতি মাতা নদী পার হওয়ার সময় নৌকার মধ্যে সন্তান প্রসব করলেন।

শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে দেশের সর্ব দক্ষিণে দ্বীপ এলাকা শ্যামনগর উপজেলার গাবুরা ও বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়নের সংযোগ খোলপেটুয়া নদীর নেীকাতে এ ঘটনা ঘটে। পরে ওই প্রসূতিমাতাকে নদীর চরে নেীকা রেখে সুস্থ করা হয়।

স্থানীয় উন্নয়ন কর্মী শাহিন বিল্লাহ ও উপজেলার গাবুরা ইউনিয়নের ৯নম্বর ওয়ার্ডের সোরা গ্রামের কাশেম গাজী জানান শুক্রবার বিকালে তার মেয়ে শামিমা খাতুনের (১৯) প্রসব বেদনা শুরু হয়। এ সময় স্থানীয় ধাত্রীকে ডাকা হয়। তিনি চেষ্টা করেও সন্তান প্রসব করাতে না পেরে শ্যামনগর সরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন।

দ্বীপ ইউনিয়ন গাবুরা থেকে উপজেলা সদরে যাওয়ার একমাত্র মাধ্যম নদী পথ। বিকল্প উপায় না থাকায় নৌকা ভাড়া করে প্রসূতিকে নিয়ে উপজেলা সদরের হাসপাতালে যাওয়ার পথে খোলপেটুয়া নদীতে নৌকার মধ্যেই প্রসূতি মাতা সন্তান প্রসব করেন।

পরে তাকে পাশ্ববর্তী বুড়িগোয়ালিনী নীলডুমুর নামক স্থানে নদীর চরে নেীকায় রেখে কিছুটা সুস্থ করা হয়। রাতে দুর্গম এলাকায় এ্যামবুলেন্স না পাওয়ায় নবজাতকসহ প্রসূতিমাতাকে হাসপাতালে না নিয়ে নৌকা যোগে গ্রামের বাড়ীতে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।

উল্লেখ্য যে শ্যামনগর উপজেলা সদর থেকে গাবুরা ইউনিয়নের দূরত্ব প্রায় ২৫ কিলোমিটার। এই ইউনিয়নের চার পাশ দিয়ে নদী প্রবাহিত। এখানকার মানুষের যাতায়াতের মাধ্যম নেীকা বা ইঞ্জিন চালিত ট্রলার। গাবুরা ইউনিয়ন বাসীকে নদী পার হয়ে নীলডুমুর খেয়া ঘাটে এসে মোটরসাইকেল , ইজিবাইক,ভ্যান বা অন্য কোন যানবাহনযোগে উপজেলা সদরে আসতে হয়।

উপজেলা সদর ছাড়া নিকটবর্তী কোন হাসপাতাল বা বেসরকারী ক্লিনিক না থাকায় এ রকম রোগিদের ভোগান্তি পোহাতে হয়। কয়েক বছর পূর্বে থেকে নীলডুমুর এলাকায় সরকারিভাবে ১০ শয্যা বিশিষ্ট একটি হাসপাতাল নির্মানের কথা থাকলেও আজও সেটি আলোর মুখ দেখেনি। শুধু ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করা আছে মাত্র। এলাকাবাসীর সুন্দরবন সংলগ্ন এলাকায় সরকারিভাবে একটি ১০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল নির্মানে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে দাবী জানিয়েছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 1
    Share


এই বিভাগের আরো খবর