• সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭:০৬ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English
শিরোনাম
খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে রাজনীতি বন্ধ করা উচিত শ্যামনগর উপজেলা প্রশাসনের বিজ্ঞান বিষয়ক অনলাইন কুইজ প্রতিযোগিতা ধর্মপাশায় আওয়ামী লীগের নেতাদের স্মরণে শোক সভা তেঁতুলিয়ায় পর্যটকদের নিরাপত্তায় কাজ করছে ট্যুরিস্ট পুলিশ চট্টগ্রাম মহানগরীতে জোয়ারের পানিতে নিচু এলাকা প্লাবিত কেশবপুরে সম্ভাব্য কাউন্সিলর প্রার্থীদের গণসংযোগ অব্যাহত শ্যামনগরে পুলিশের অভিযানে বিভিন্ন মামলার ৫ আসামি আটক বিরামপুরে মেয়র প্রার্থীর প্রতিষ্ঠানে ভাংচুর মধ্যনগরে বিদ্যালয় ও কলেজে বন্যা আশ্রয় কেন্দ্রের ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন ত্রিশালে মাদ্রাসার ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন এমপি মাদানী

যমুনার দূর্গম চরাঞ্চলে ত্রাণ দিল ভালোবাসি জামালপুর

লিয়াকত হোসাইন লায়ন, জামালপুর
প্রকাশ হয়েছে : বৃহস্পতিবার, ৩০ জুলাই ২০২০ | ১:২৯ am
                             
                                 

জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলার বন্যাদুর্গত মানুষদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ করেছে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘ভালোবাসি জামালপুর’। ২৯ জুলাই বুধবার উপজেলার চিনাডুলী ইউনিয়নের ৫টি গ্রামের পানিবন্দী মানুষের হাতে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রীর প্যাকেট তুলে দেয় সংগঠনের সদস্যরা। গ্রামগুলো হলো চর নন্দনের পাড়া, বীর চন্দনের পাড়া, পূর্ব বামনা, গুঠাইল, শিংভাঙ্গা।

ভালোবাসি জামালপুরের প্রতিষ্ঠাতা সজীব মিয়া বলেন, ত্রাণ হিসেবে একটি পরিবারের এক সপ্তাহ চলার মতো চাল, ডাল, তেল, আলু, চিড়া, লবণ, সাবান ও খাবার স্যালাইন দেওয়া হয়। সংগঠনের পক্ষে সংগৃহীত ব্যক্তি অনুদান থেকে ৩০০ জন মানুষের হাতে ত্রাণ পৌঁছে দেবে ভালোবাসি জামালপুর।

প্রথম দফায় ইসলামপুরে ১৫০ জন বন্যাদুর্গত মানুষকে এই সহায়তা তুলে দেওয়া হলো। চিনাডুলী ইউনিয়নটি উপজেলার অন্য এলাকা থেকে একেবারে বিছিন্ন। মূল ভূখন্ড থেকে যমুনার চরটিতে নৌযানে পৌঁছাতে সময় লাগে প্রায় একঘণ্টা। এলাকা মাঠ ও ঘরবাড়িতে বুকপানি। গবাদিপশু আর আশ্রয়হীন মানুষগুলো উঁচু কোনো জায়গায় কষ্টে দিন পার করছে। অনেক অধিবাসীর দিন কাটছে অর্ধাহারে অনাহারে। ইউনিয়নটির অন্য গ্রামে কিছু ত্রাণ পৌঁছালেও চর নন্দনের পাড়া গ্রামে আগে পৌঁছায়নি। এই গ্রামের মানুষের জন্যই ভালোবাসি জামালপুরের ত্রাণ তৎপরতা।

ত্রাণ পেয়ে পূর্ব বামনা গ্রামের জোবেদা বেগম (৫০) আবেগাপ্লুত হয়ে বলেন, আইজ পেটভরি কয়ডা ভাত খাইতে পারমু। এই নারী এক মাসের বেশি সময় ধরে পানিবন্দী। অসুস্থ স্বামীকে নিয়ে অনাহারে দিন কাটাচ্ছেন। জনপ্রনিধিদের কাছে চেয়েও ত্রাণ সহায়তা পাননি। ভালোবাসা জামালপুরের ত্রাণ পাওয়ায় কয়েকটা দিন খাবার নিয়ে ভাবতে হবে না। চর নন্দনের পাড়ার দিনমজুর শামসু আলী (৩৮) বলেন, দিন আনি দিন খাই, ভাই। বানের পানি আসার পর এলাকায় কোনো কাজ নাই, কেউ ত্রাণও দেই নাই।

ভালোবাসি জামালপুরের প্রতিষ্ঠাতা বলেন, ত্রাণের আরেক অংশ দেওয়ানগঞ্জের দুর্গত মানুষের মাঝে বিতরণ করব আমরা। আমাদের এই উদ্যোগে ক্যাডেট কলেজ ইনটেক ২০১০ ব্যাচ, ইউটিউবার ইয়েলো পটেটো ও কিটো ভাই এবং মাস্তুল ফাউন্ডেশনসহ ব্যক্তিগতভাবে যারা সহায়তা করেছেন ভালোবাসি জামালপুর তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ।
উল্লেখ্য, জেলার তরুণদের সংগঠন ‘ভালোবাসি জামালপুর’। মুক্তিযুদ্ধ গবেষণাসসহ নানা সামাজিক ও সৃজনশীল কর্মকান্ডের সঙ্গে জড়িত সংগঠনটি। ইতিমধ্যে জাতীয়ভাবেও এসব কাজের স্বীকৃতি মিলেছে। এর মধ্যে ইয়াং বাংলার ‘জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড ২০১৮’ অন্যতম।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 17
    Shares


এই বিভাগের আরো খবর