• রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ০১:২৮ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English
শিরোনাম
ঘাটাইলের দেওপাড়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হেপলুর উদ্যোগে মাস্ক বিতরণ মাগুরায় করোনা প্রতিরোধে এমপি শিখরের অনুদানে মাস্ক ও স্যানিটাইজার বিতরণ শ্যামনগরে দুই দিনে করোনা টিকার ২য় ডোজ গ্রহণ করলেন ২১০জন শ্যামনগরে মোবাইলকোটে প্রায় আটহাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান মাদারীপুরে মেজর ও মেরিন অফিসার পরিচয় দিয়ে প্রতারনার সময় ৩জন আটক করোনায় মাদারীপুরের শিবচরে এক ব্যাক্তির মৃত্যু মণিরামপুরে করোনা নির্দেশনা না মানায় জরিমানা তাহিরপুরে বালু উত্তোলনে বাঁধা দেয়ায় বালু খেকোদের মারপিটে এক ব্যক্তি আহত ‘২০০ টাকার জন্য খুন করেছি’ ঘাতক বন্ধুর স্বীকারোক্তি সাতক্ষীরায় দিন-দুপুরে বন্ধুকে জবাই করে হত্যা

যশোরেশ্বরী কালী মন্দিরে পূজা অর্চনা করলেন নরেন্দ্র মোদি

রনজিৎ বর্মন, শ্যামনগর (সাতক্ষীরা)
প্রকাশ হয়েছে : শনিবার, ২৭ মার্চ ২০২১ | ৪:২৮ pm
                             
                                 
শ্যামনগর যশোরেশ^রী কালী মন্দিরে পূর্জা অর্চনা শেষে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ফটোসেশনে অংশ নেন।

বাংলাদেশের দক্ষিণ পশ্চিমের সুন্দরবন সংলগ্ন সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার ঈশ্বরীপুর যশোরেশ্বরীপুর কালী মন্দিরে পূজা অর্চনা করলেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। মন্দিরের অভ্যন্তরে পুরোহিত হিসাবে প্রধানমন্ত্রীকে মন্ত্র পাঠ করান দিলিপ কুমার মুখ্যার্জী।

তিনি শনিবার সকাল ১০টায় ঈশ্বরীপুর এ সোবহান মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাঠে হেলিকপ্টার যোগে অবতরণের পর হেলিপ্যাড থেকে নেমে প্রায় আধা কিলোমিটার সড়ক পথে মোটরশোভা যাত্রা সহকারে সরাসরি মন্দিরে চলে আসেন। মন্দিরে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীকে সেবাইত পরিবারের পক্ষ থেকে প্রথমে ফুল দিয়ে বরণ করে নেন কৃষ্ণা চট্রোপাধ্যায় ও বিশিষ্ট আবৃতিকার জয়ন্ত চট্রোপাধ্যায়। এর সাথে সাথে নির্ধারিত সনাতনধর্মী নারীরা উলু ধ্বনী, শঙ্ক ধব্বনী ও ঢাকীরা ঢাক বাজিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান।

মন্দিরের পুরোহিত জানান প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদি প্রায় ১৫ মিনিট পূজা অর্চনা করেন এবং পূর্জ অর্চনা শেষে মন্দির অভ্যন্তরের চার পাশ ঘুরে দেখেন। এর পর তিনি মন্দিরের নির্ধারিত বিশ্রামাগারের কয়েক মিনিট বিশ্রাম শেষে এক ফটো সেশন ও কুশল বিনিময় করে গোপালগঞ্জের উদ্দেশ্যে মন্দির থেকে রওনা দেন।

ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর সফরকে ঘিরে নেওয়া হয় কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা। সফরকালিন সময়ে পুলিশ, র‌্যাব, ডিবি পুলিশ, ডিজি এফ আই , এন এস আই , বিজিবি, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী সহ অন্যান্য পর্যায়ের কয়েক হাজার নিরাপত্তা বাহিনী নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করেন। জানা যায় মন্দিরের বেশ কয়েক কিলোমিটার দূর পর্যন্ত জোরদারভাবে নিছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা ছিল ।

ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে ঘিরে হেলিপ্যাড থেকে মন্দির পর্যন্ত নান্দনিকভাবে সাজানো হয়। মন্দিরকে সাজানো হয় ফুল দিয়ে । এছাড়া সড়কের দুপাশ ছিল বাংলাদেশ ও ভারতের প্রধানমন্ত্রীর ছবি, বাঁশের তৈরী শিল্প কর্ম সহ অন্যান্য কর্ম চিত্র। কালী মন্দিরের পূর্জা অর্চনা শেষে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদি গোপালগঞ্জের উদ্দেশ্যে রওনা হন।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 1
    Share


এই বিভাগের আরো খবর