• মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১১:৪১ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English

করোনাকালীন শ্যামনগর পল্লী বিদ্যুতের সেবা

রনজিৎ বর্মন, শ্যামনগর (সাতক্ষীরা)
প্রকাশ হয়েছে : শুক্রবার, ২৯ মে ২০২০ | ১০:৪৩ pm
                             
                                 

বর্তমান সময়ে মহামারী করোনা ভাইরাসের প্রার্দুভাবে জনজীবন এক রকম স্থবির অবস্থা বিরাজ করছে। শুধু দেশে নয় বিদেশেও এই মহামারী ভাইরাসের কারণে সকল ক্ষেত্রে এক পরিবর্তন বিরাজ করছে। এই সময়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে সকলেই এক প্রকার বাড়ীতে অবস্থান করছি বা বাড়ীতে অবস্থান সহ অতি প্রয়োজনে বাইরে যাওয়ার ক্ষেত্রে সরকারিভাবে বিভিন্ন নিয়মাবলী অনুসরণ করছি। বাড়ীতে অবস্থানকালে পরিবারের সকলে বিনোদন করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি এর সাথে সামর্থ্য অনুযায়ী খাদ্যভ্যাস পরিবর্তন করার চেষ্টা করছি। এ ছাড়া বাড়ীতে বসে অফিসের কাজ চালিয়ে যাওয়া , অনলাইন লেখাপড়া করা বা যা কিছু করছি প্রায় সবটাই ডিজিটাইলেশনের মাধ্যমে।

এই সব কিছুর সাথে আমাদের জড়িয়ে আছে বিদ্যুৎ সুবিধা। সেই বিদ্যুৎ সেবা সংশ্লিষ্ট সকল দপ্তর বা ব্যক্তি বর্গ তাদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে করোনা কালীন সময়ে সব ধরনের গ্রাহকের সেবা দিতে মাঠে কাজ করে যাচ্ছেন। এমনকি এরই মাঝে ঘূর্ণিঝড় সহ অন্যান্য দূর্যোগ ঘটে গেলে তাদের বাড়তি চাপ নিয়ে দিন রাত পরিশ্রম করে গ্রাহকের সেবা দিতে হয়।

করোনা এবং প্রাকৃতিক দূর্যোগ এই দুইয়ের চাপ নিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পরিশ্রম করে চলেছেন সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি শ্যামনগর সাবজোনাল অফিসের অর্ধ শতাধিক এর উপরে কর্মকর্তা কর্মচারী। করোনাকালীন সময়ে প্রায় সব অফিস সরকার সাধারণ ছুটি ঘোষনা করেছেন। এই সাধারণ ছুটির মধ্যে অতি জরুরী প্রয়োজনে কিছু কিছু অফিস স্বাস্থ্য বিধি অনুসরণ করে স্বল্প মাত্রায় কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। কিন্ত সাধারণ ছুটির মধ্যে পল্লী বিদ্যুৎ শ্যামনগর অফিস নতুন সংযোগ প্রদান ও জরুরী সেবা প্রদান করে যাচ্ছেন।

সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি শ্যামনগর সাবজোনাল অফিসের এজি এম মধুসূদন রায় বলেন “সকল ত্যাগে পল্লী বিদ্যুৎ রাখিব সচল -দূর্যোগে আলোর গেরিলা ” এ শ্লোগানকে সামনে নিয়ে শ্যামনগরে ৬০ হাজার গ্রাহকের সেবা দিয়ে চলেছে শ্যামনগর সাবজোনাল অফিসের সকল কর্মকর্তা কর্মচারী। শ্যামনগর উপজেলায় বিদ্যূতের লাইন রয়েছে ১৪ শত কিলোমিটার। ট্রান্সফরমর রয়েছে ৫ হাজারটি। সাবজোনাল অফিসের আওতায় রয়েছে মুন্সিগঞ্জ ও নুরনগর ইউপিতে দুটি অভিযোগ কেন্দ্র।

করোনাকালীন সময়ে মে মাসের সেবা সমূহ বিষয়ে জানতে চাইলে এজি এম মধুসূদন রায় বলেন প্রায় ৯শত নতুন সংযোগ প্রদান করা হয়েছে কিন্ত লক্ষ্য মাত্রা আছে ২ হাজার এক শতটি। এ ছাড়া প্রত্যহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে অফিস কার্যক্রম চালু রাখা। প্রত্যহ সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে ৩/৪ শত গ্রাহকের বিল গ্রহণ, গ্রাহকের উপস্থিতিতে নতুন সংযোগ আবেদন গ্রহণ,জামানত মিটার ,পরামর্শ সেবা প্রদান ,লাইনে কোন সমস্যা থাকলে সংস্কার কার্যক্রম সহ অন্যান্য সেবা প্রদান অব্যাহত রয়েছে।

তিনি বলেন প্রত্যহ অফিসে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা সহ সাবান পানি দিয়ে হাত ধেীত করণ ও মাস্ক ব্যবহার করা সহ অন্যান্য সচেতনতা মুলক বিষয়ে হ্যান্ড মাইকের মাধ্যমে প্রচারণা করা হয়।

এজি এম মধুসূদন আরও বলেন মে মাসের প্রথম দিকে উপজেলা প্রশাসন ও শ্যামনগর ফ্রেন্ডশিপ হাসপাতালের সহযোগিতায় সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি শ্যামনগর সাবজোনাল অফিসের আয়োজনে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে দুই ব্যাচে অফিস হল রুমে সকল কর্মকর্তা কর্মচারীর অংশ গ্রহণে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে সচেতনতা মুলক সেমিনার করা হয়। যেখানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আ.ন.ম আবুজর গিফারী। প্রধান প্রশিক্ষক ছিলেন শ্যামনগর ফ্রেন্ডশিপ হাসপাতালের পরিচালক লেঃ কর্ণেল (অবঃ) ডাঃ মুজাহেদুল হক। উপস্থিত ছিলেন শ্যামনগর প্রেসক্লাবের সাংবাদিক রনজিৎ বর্মন সহ অন্যান্যরা।

শ্যামনগর পল্লী বিদ্যূতের সেবা সম্পর্কে মুন্সিগঞ্জের গ্রাহক পরিমল রায়,নির্মল মন্ডল সহ অন্যান্যরা বলেন আমরা নতুন সংযোগ পেয়েছি কোন প্রকার দূর্ভোগ ছাড়া। এদিকে শ্যামনগরের শিক্ষক আবুল কালাম,ভেটখালীর গ্রাহক বিকাশ কান্তি বলেন বিদ্যুৎ সার্ভিস এখন অনেক ভালো।

এজি এম মধুসূদন অভিমত প্রকাশ করে বলেন শ্যামনগর পল্লী বিদ্যুৎ অফিস দালাল মুক্ত,প্রতারক মুক্ত,হয়রানী মুক্ত করার অভিপ্রায়ে সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন । তিনি আশা প্রকাশ করে বলেন ভবিষ্যতে অনলাইনে সকল কাজ করা হবে এবং সে ভাবে চেষ্টা চলছে এ ক্ষেত্রে তিনি গ্রাহকদের সহযোগিতা আশা করেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন


এই বিভাগের আরো খবর