• বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০৬:১৪ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English
শিরোনাম
শ্রীপুরে ওয়েভ ফাউন্ডেশনের করোনাকালীন অনুদানের অর্থ বিতরণ এমপি ফরিদুল হক খান দুলাল ধর্মপ্রতিমন্ত্রী হওয়ায় ইসলামপুরে আনন্দ মিছিল প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন ফরিদুল হক সেচ্ছাসেবী সংগঠন গ্যালাক্সি র তজুমদ্দিনে বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় কর্মসূচী পুনঃনিয়োগ পেলেন ইবি’র সহকারী তিন প্রক্টর বাঘারপাড়ায় সীমানা পিলার উদ্ধার, গ্রেফতার ১ শ্যামনগরে প্রতিবন্ধীদের সরকারি ও বেসরকারী কর্মসূচিতে অর্ন্তভুক্তিকরণ বিষয়ে মতবিনিময় সুন্দরগঞ্জে কৃষকলীগের র‌্যালী অবৈধ হাসপাতাল ও ল‍্যাবের তালিকা করবে চসিক তাহিরপুর সীমান্তে বর্ডার হাট পরিদর্শনে ভারতীয় সহকারী হাই কশিশনার

কেশবপুরে গাছিদের খেজুরের রস সংগ্রহে প্রস্তুতি শুরু

আবু হুরাইরা রাসেল কেশবপুর (যশোর)
প্রকাশ হয়েছে : বুধবার, ১৮ নভেম্বর ২০২০ | ১০:২৯ am
                             
                                 

যশোরের কেশবপুরে শীতের আমেজ আসার সাথে সাথে গাছিরা খেজুরের রস সংগ্রহে ব্যাপক প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন।প্রকৃতির পালা বদলে আসে শীত। প্রভাতে শিশির ও ঘন কুয়াশা জানান দিচ্ছে শীতের আগমণী বার্তা।শীতের মৌসুম শুরু হতে না হতেই রস ও গুড়ের চাহিদা মেটাতে গাছিরা খেজুর গাছ কাটা শুরু করেছেন।

খেজুর গাছ থেকে রস সংগ্রহের জন্য এখন গাছের আগায় বিশেষ পদ্ধতিতে কাটা চলছে। ধারালো দা (গাছিদা) দিয়ে খেজুর গাছ কাটা হয়।যাকে বলে চাঁচ দেওয়া। সপ্তাহ খানেক পর নোলন স্থাপনের মাধ্যমে শুরু হয় সুস্বাদু খেজুর রস সংগ্রহের কাজ। তার কিছুদিন পরই গাছে লাগানো হবে মাটির পাতিল বা ভাড়।এই মাটির পাতিল বা ভাড়ে সংগ্রহ করা হবে খেজুরের রস। তা দিয়ে তৈরি হবে লোভনীয় গুড় ও পাটালি।

কেশবপুরের বেশির ভাগ গ্রামে চোখে পড়ে খেজুর গাছের বিশাল সমারোহ। জমির আইলে ও পতিত জায়গায় অসংখ্য খেজুর গাছ দেখা যায়। কেশবপুর উপজেলার হাসানপুর, বরনডালি, মৃর্জানগর, চাঁদড়া, বড়েঙ্গা, মঙ্গলকোট, মজিদপুর, দোরমুটিয়া ও সাতবাড়িয়াসহ প্রভৃতি গ্রাম জুড়ে রয়েছে খেজুরের গাছ।শীত মৌসুমে খেজুরের রস দিয়েই গ্রামীণ জনপদে শুরু হয় শীতের আমেজ।

শীত যত বাড়বে, খেজুরের রস তত বেশি পরিমাণে হবে। শীতের সবচেয়ে বড় আকর্ষণ দিনের শুরুতে খেজুরের রস, সন্ধ্যা রস ও সুস্বাদু গুড়-পাটালী। বাড়ীতে বাড়ীতে খেজুুরের রস জ্বালিয়ে পিঠা পায়েসসহ হরেক রকমের মুখরোচক খাবার তৈরির ধুম পড়ে শীতকালে। সুস্বাদু পিঠা ও পায়েস তৈরীতে আবহমান কাল থেকে খেজুর গুড় ওতপ্রোতভাবে জড়িত।

শীতকালে খেজুরের রস বিক্রি ও গুড় তৈরির কাজ এলাকায় চলে পুরোদমে। এখন চলছে প্রস্তুতি। কৃষকরা জানান, খেজুর গাছ থেকে রস সংগ্রহের জন্য বিশেষ পদ্ধতিতে গাছের আগা কাটা হয়। গাছের আগা কাটা শ্রমিকও সহজে পাওয়া যায় গ্রামে। ২৫০ থেকে ৩০০টাকা মজুরি নিয়ে তারা গাছ কাটেন। শীতের পুরো মৌসুমে তারা বাড়িতে খেজুরের গুড় ও পাটালি তৈরি করেন। ওই সময় তাদের প্রতিদিন আয় হয় এক থেকে দুই হাজার টাকা।

অনেক কৃষকের খেজুর গাছ কেটেও সংসার চলে‌। এখানকার কারিগরদের দানা পাটালি তৈরিতে ব্যাপক নাম।খেজুরের গুড়-পাটালীর ব্যাপক চাহিদা রয়েছে অন্যান্য জেলা ও দেশের বাইরেও।অনেকে দেশের বাইরেও সরবরাহ করেন সুস্বাদু গুড়-পাটালী।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 2
    Shares


এই বিভাগের আরো খবর