• মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬:৩০ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English

অপরাধীদের ধরতে জোরালো দাবি

গোলাপগঞ্জের দুষ্কৃতিরীদের কবলে ব্যবসায়ীরা

কামরুল ইসলাম শিপু, গোলাপগঞ্জ, সিলেট
প্রকাশ হয়েছে : বৃহস্পতিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১:১২ am
                             
                                 

গোলাপগঞ্জে হঠাৎ করে একটি দুষ্কৃতিকারী চক্র সক্রিয় হয়ে উঠেছে। এই চক্রটি গোলাপগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ীদের টার্গেট করে ছিনতাই করছে। এতে আতঙ্কের মধ্যে রয়েছেন গোলাপগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ীরা।

জানা যায়, গত ১২ সেপ্টেম্বর রাত সাড়ে ৯টায় গোলাপগঞ্জ বাজারের বিশিষ্ট চাউলের ব্যবসায়ী এম এ বাছিত ট্রেডার্স এর সত্ত্বাধিকারী আব্দুল বাছিত তার ভাতিজাকে ৩ হাজার টাকা দিয়ে বাড়িতে যেতে বলেন। তার ভাতিজা আবু তাহের সেই টাকা নিয়ে ফুলবাড়ি ইউনিয়নের হাজিপুর লরিফর মইজ উদ্দিনের বাড়ী সামনে যাওয়া মাত্র অজ্ঞাত মুখোশধারী ৩/৪ জন যুবক তার হাত পা বেধে সাথে থাকা ৩ হাজার টাকা ও ১০হাজার টাকার মূল্যের একটি এন্ড্রয়েড মোবাইল নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে হাত পা অবস্থায় আবু তাহেরকে স্থানীয় জনগন উদ্ধার করেন। এ ঘটনায় আব্দুল বাছিত গোলাপগঞ্জ মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন। একই ভাবে ছয়েফ আহমদ নামের আরেক ফার্ণিচার ব্যবসায়ীও ছিনতাইকারী চক্রের কবলে পড়েন। গত ৫ সেপ্টেম্বর রাত ১১টার দিকে তিনি গোলাপগঞ্জ বাজারের নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ফাহিম ফার্ণিচার থেকে বাড়িতে যাওয়ার পথে বাদে রণকেলী ও ঘোগারকুল গ্রামের মধ্যবর্তী স্থানে যাওয়া মাত্র ৪/৫ জনের একটি সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী চক্র তাঁর উপর ঝাপিয়ে পড়ে। এসময় তাদের সাথে এই ব্যবসায়ী ধস্তাধস্তি করলে এক পর্যায়ে ছিনতাইকারীরা নাকে মুখে স্পে মেরে অজ্ঞান করে তার সাথে থাকা ব্যবসার ৩২ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে অজ্ঞান অবস্থায় ছয়েফ আহমদ কে এলাকার লোকজন উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যান। পর দিন ব্যবাসায়ী ছয়েফ আহমদ জ্ঞান ফিরে পেলে ঘটনার বর্ণনা দেন। এ ঘটনায় ছয়েফ উদ্দিন গোলাপগঞ্জ মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন।

এ ব্যাপারে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ হারুনুর রশীদ চৌধুরী বলেন বিষয় গুলোর সম্পর্কে তিনি অবহিত হয়েছে। ঐ সব অপকর্মের সঙ্গে যারা জড়িত রয়েছেন তাদেরকে কোন ভাবেই ছাড় দেয়া হবে না। পুলিশ অপরধিদের ধরতে তৎপর রয়েছে।

তিনি আরো বলেন লক্ষণাবন্দে পানির ট্রেংকিতে বিষাক্ত পদার্থ মিশ্রন কারীরা রক্ষা পায়নি, মালামাল উদ্ধারের পাশাপাশি অপরাধিরাও ধরা পড়েছে। খুব শিঘ্রই ব্যবসায়ীদের উপর হামলাকারীরা ধরা পড়বে বলে তিন আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

এদিকে গোলাপগঞ্জের দু’ব্যবসায়ীর উপর দুষ্কৃতিকারীদের ন্যাক্কারজনক হামলা ও টাকা পয়সা ছিনিয়ে নেয়ার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন গোলাপগঞ্জ বাজার বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আহাদ। তিনি এ ব্যাপারে পুলিশ শক্ত ভূমিকা পালনের জন্য আহবান জানান।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 14
    Shares


এই বিভাগের আরো খবর