• মঙ্গলবার, ০৩ অগাস্ট ২০২১, ০৭:২৮ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English
শিরোনাম
শিগগির বাংলাদেশে ‘কোভ্যাক্সিন’র ট্রায়াল চালাতে চায় ভারত সাতক্ষীরায় জুলাই মাসে করোনায় ১৫, উপসর্গে ২০৫ জনের মৃত্যু গোবিন্দগঞ্জ ছিনতাইকৃত মহিষ আক্কেলপুরে উদ্ধার রবিউল এবার পেল সুচিকিৎসার ব্যবস্থা, সমাজসেবা থেকে পেল আর্থিক সহায়তা বোয়ালমারীতে জেলা পরিষদ বানিজ্যিক ভবনের কক্ষ থেকে দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার সুন্দরগঞ্জে টিকা সম্প্রসারণে অবহিতকরণ সভা মাধবপুরে কঠোর নজরদারিতে এসিল্যান্ড অভিযানে ১৩টি মামলায় জরিমানা সেই পরিত্যক্ত ঘরেই মারা গেলেন জনপ্রিয় শিক্ষক যত্রতত্র ফেলা হচ্ছে বর্জ্য, হুমকির মুখে পরিবেশ বকশীগঞ্জে ৩৩৩ ফোন ও খুদে বার্তা পাঠিয়ে খাদ্য সহায়তা পেয়েছেন ১৪০০ পরিবার!

চাচি শাশুড়িদের মারপিটে ছয়ঘন্টা জ্ঞানহারা ছিলেন গৃহবধূ

আনোয়ার হোসেন, (মনিরামপুর) যশোর
প্রকাশ হয়েছে : মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১ | ৮:৩০ pm
                             
                                 

যশোরের মণিরামপুরে পারিবারিক কলহের জেরে চার চাচি শাশুড়ির হামলা ও মারপিটে গুরুত্বর আহত হয়েছেন পিংকি খাতুন (২০) নামে এক গৃহবধূ। পারপিটের শিকার হয়ে ছয় ঘন্টা ধরে জ্ঞান হারা ছিলেন ওই নারী। সোমবার (১৪জুন) সকাল সাড়ে নয়টার দিকে উপজেলার রঘুনাথপুর গ্রামে ঘটনাটি ঘটে।
এরপর মণিরামপুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে জ্ঞান ফেরে গৃহবধূর। পিংকি রঘুনাথপুর গ্রামের মাসুদ পারভেজের স্ত্রী। এই ঘটনায় মণিরামপুর থানায় আট জনকে আসামি করে অভিযোগ করেছেন গৃহবধূর স্বামী।
অভিযুক্তরা হলেন, পিংকির তিন চাচা শ্বশুর মনির হোসেন, সহিদুজ্জামান ও নুরুজ্জামান, চার চাচি শাশুড়ি শিরিনা খাতুন, নাহার বেগম, পারুল বেগম ও শারমিন আক্তার এবং দেবর জাহিদ হোসেন।
পিংকি মণিরামপুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
মাসুদ বলেন, পারিবারিক কলহের জেরে সহিদুজ্জামানের হুকুমে মনির ও তার ছেলে জাহিদ আমার স্ত্রীর হাত ধরে রাস্তা থেকে টেনে নিয়ে নুরুজ্জামানের বাড়ি ঢুকিয়ে ফেলে। প্রথমে মনির ও জাহিদ মারপিট শুরু করে। এরপর চার চাচি শাশুড়ি মিলে তাকে কিল, ঘুষি ও লাথি মারতে থাকে। একপর্যায় আমার স্ত্রী মাটিতে লুটিয়ে পড়লে তারা আরো মারপিট করে। এতে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন আমার স্ত্রী। পরে আমি তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করি। সেখানে চিকিৎসা চলার পর বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে পিংকির জ্ঞান ফেরে।
মণিরামপুর হাসপাতালের নারী ওয়ার্ডের ইনচার্জ সিনিয়র স্টাফ নার্স বন্দনা নন্দি বলেন, মারপিটের ঘটনায় ভর্তি হওয়া গৃহবধূর চিকিৎসা চলছে। তার গায়ে প্রচন্ড ব্যাথা রয়েছে।
খেদাপাড়া ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই গোলাম রসুল বলেন, মারপিটের খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছি। গৃহবধূকে খুব মারপিট করা হয়েছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন। এই ঘটনায় থানায় অভিযোগ হয়েছে। ভিকটিমের পরিবার মামলা করলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন


এই বিভাগের আরো খবর