• রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ০৮:৫৯ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English
শিরোনাম

ধর্মপাশায় সংসদের প্রভাব খাটিয়ে ছাত্রলীগ নেতার উপর হামলা

মোবারক হোসাইন, ধর্মপাশা (সুনামগঞ্জ)
প্রকাশ হয়েছে : বুধবার, ৭ এপ্রিল ২০২১ | ২:২৫ pm
                             
                                 

সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলা জয়শ্রী ইউনিয়নে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের উপ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক আফজাল খাঁনের উপর উপজেলার জয়শ্রী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম আলম এর ছেলে হেফাজত কর্মী আল মুজাহিদের নেতৃত্বে ০৬-০৪-২০২১ তারিখ মঙ্গলবার অনুমান সাড়ে ৫ টার দিকে জয়শ্রী বাজারে এই হামলার ঘটনা ঘটে,পরে পুলিশ গিয়ে ঘটনাস্তল থেকে ছাত্রলীগ নেতা আফজাল কে উদ্ধার করে।

হেফাজত কর্মী ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, গত ২৯শে মার্চ -২০২১ তারিখে ছাত্রলীগ নেতা আফজাল খাঁন (Afzal Khan নামে তার নিজস্ব ফেইসবুক আইডি থেকে হেফাজতে ইসলামের আন্দোলনের কয়েকটি ছবি ও ধর্মের নামে ব্যাবসা) এতটুকু লিখে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেইসবুকে স্ট্যাটাস দেন। সেই স্ট্যাটাস টিকে ভিন্ন ভিন্ন ভাবে অপপ্রচার করে ও ইসলাম কে ঝরিয়ে সাধারণ মুসলমানের কাছে রাসুল (সাঃ)ও ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটুক্তি করা হয়েছে বলে প্রচার শুরু করে জয়শ্রী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম আলম এর ছেলে হেফাজত কর্মী আল মুজাহিদ ও হেফাজতের কর্মীরা।পরে বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হলে জয়শ্রী বাজারে কয়েকশত মানুষ এসে হাজির হয়ে ছাত্রলীগ নেতা আফজাল খাঁনের উপর হামলা চালায় এবং তাকে জয়শ্রী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে অবরুদ্ধ করে রাখে।পরে ঘটনাস্তল থেকে তাকে পুলিশ উদ্ধার করে।

কে এই আবুল হাশেম আলম তার ছেলে আল মুজাহিদ কার ছত্রছায়ায় ছাত্রলীগ নেতার উপর হামলা করেছে? জানা যায় সুনামগঞ্জ ১ আসনের সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতনের চাচা জয়শ্রী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম আলম এর ছেলে হেফাজত কর্মী আল মুজাহিদ।তারা জামাত-বিএনপি’র লোক ছিল। মোয়াজ্জেম হোসেন রতন এমপি হওয়ার পর এমপির আত্মীয় হিসাবে তাকে আওয়ামী লীগের পথটি দেয়া হয়। পদটি পাওয়ার পর থেকে জয়শ্রী ইউনিয়ন বাসীর উপর আবুল হাশেম আলম ও তার ছেলেদের কর্তৃত্ব দেখাতে শুরু করে ও বিভিন্ন ভাবে স্থানীয় সংসদ মোয়াজ্জেম হোসেন রতন এমপির প্রভাব খাটায় এলাকাবাসীর অভিযোগ।

ছেলের হামলার ঘটনাটি অস্বীকার করে জয়শ্রী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম আলম বলেন আমি লোকজনের মুখে শুনেছি আফজাল খাঁন ফেইসবুকে রাসুল (সাঃ) ও ইসলাম ধর্ম কে নিয়ে কটুক্তি করেছে তাই সাধারণ মুসলমান তাকে হামলার চেষ্টা করেছে পরে তাকে আম জনতার কাছে ক্ষমা চাওয়ার পর পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের উপ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক আফজাল খাঁন বলেন,মঙ্গলবার বিকাল আনুমানিক ৫ ঘটিকায় আমি বাজারে আসি, এদিকে জয়শ্রী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম আলমের ছেলে,হেফাজতের জয়শ্রী ইউনিয়নের সক্রিয় কর্মী আল মুজাহিদ আমার উপর হামলা করে, হামলার কারণ আমি হেফাজতের বিরুদ্ধে কেন পোস্ট করলাম, হামলার এক পর্যায়ে তারা আমাকে টেনে হিছড়ে জয়শ্রী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে আটকে রাখে এবং বেশ কয়েকবার হামলার চেষ্টা করে, আমার কিছু বন্ধু বিষয়টা নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে,বিষয়টি সমাধানের কথা বলে জয়শ্রী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম আলম ও উপজেলা যুবলীগ নেতা এনায়েত হোসেন আমাকে উৎসুক জনতার কাছে জোর করে মাফচাওয়ায়, যেটা আমার জন্য সম্মানহানিকর,এরপর পুলিশ আমাকে উদ্ধার করে ধর্মপাশা থানায় নিয়ে বিষয়টি ভালভাবে শুনে একটি লিখিত ঢকুমেন্ট রেখে ছেড়ে দেয়, এর পর আমি আমার গন্তব্যে চলে যাই

ধর্মপাশা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মোহাম্মাদ দেলোয়ার হোসেন বলেন একটি ফেইসবুক স্ট্যাটাস কে কেন্দ্র করে এই ঘটনাটি ঘটেছে আফজাল খাঁনের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নিব।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 17
    Shares


এই বিভাগের আরো খবর