• বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ১২:২২ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English
শিরোনাম
স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে লক্ষ্মীপুরে বৃক্ষরোপণ ও ঢেউটিন বিতরণ কেক কাটা ও আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে লক্ষ্মীপুরে স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত স্বেচ্ছাসেবকলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে গৌরীপুরে এতিম শিশুদের মাঝে বস্ত্র বিতরণ ধর্মপাশায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বিনামুল্যে মাস্ক বিতরণ রাজারহাটে সেনাবাহিনীর নিজস্ব রেশন দিয়ে সুস্থ-অসহায়দের মাঝে ত্রাণ বিতরণ ডাসার উপজেলা প্রেসক্লাবে মিজান সভাপতি, জাফরুল সম্পাদক নির্বাচিত ঘোড়াঘাটে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে নগদ অর্থ ও ঢেউটিন বিতরণ ঠাকুরগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে স্বেচ্ছাসেবকলীগের শ্রদ্ধা নিবেদন বকশীগঞ্জে করোনার সংক্রমণ রোধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের কার্যক্রম অব্যাহত শ্যামনগরে অর্ধলক্ষাধিক টাকার চিংড়ী বিনষ্ট

বকশীগঞ্জে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর উদ্বোধন উপলক্ষে ইউএনওর প্রেস ব্রিফিং

জিএম ফাতিউল হাফিজ বাবু, বকশীগঞ্জ (জামালপুর)
প্রকাশ হয়েছে : শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১ | ৭:৪৪ pm
                             
                                 

জামালপুরের বকশীগঞ্জে দ্বিতীয় পর্যায়ে সরকারি খাস জমিতে প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য নির্মিত সরকারি ঘর উদ্বোধন উপলক্ষে প্রেস বিফিং করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মুন মুন জাহান লিজা।
শুক্রবার বেলা ১১ টায় নিজ কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিং করে ঘর গুলোর কাজের অগ্রগতি, গুণমান ও সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে গণমাধ্যম কর্মীদের সামনে তুলে ধরেন ইউএনও মুন মুন জাহান লিজা।
এ সময় সহকারী কমিশনার (ভূমি) ¯িœগ্ধা দাস সহ স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীরা উপস্থিত ডয়লেন।
ইউএনও মুন মুন জাহান লিজা প্রেস ব্রিফিংয়ে জানান, আগামি ২০ জুন সারাদেশের ন্যায় বকশীগঞ্জ উপজেলাতে ৫০ টি পরিবারের জন্য নির্মিত সরকারি ঘর উদ্বোধন করা হবে। প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের পর আনুষ্ঠানিকভাবে উপকারভোগীদের মাঝে ঘর ও জমির দলিল পত্রাদি হস্তান্তর করা হবে।
তিনি আরও জানান “আশ্রয়নের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার” স্লোগান নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় ‘ক’ শ্রেণির ভূমিহীন অর্থাৎ যাদের জমিও নেই ঘরও নেই তাদের পুনর্বাসনের জন্য দ্বিতীয় পর্যায়ে ৫০ টি পরিবারের জন্য গৃহ নির্মাণ করা হয়েছে।
২ শতাংশ খাস জমিতে এক লাখ ৯০ হাজার টাকা ব্যয়ে দুই কক্ষবিশিষ্ট আধাপাকা ঘরের সাথে বারান্দা, রান্না ঘর ও সংযুক্ত টয়লেটসহ নির্মাণ করা হয়েছে। তবে ঘরের উচ্চতা প্রথম পযায়ের ঘরের চেয়ে এক ফুট বাড়ানো হয়েছে। ৩ টি দরজার পরিবর্তে নতুন ডিজাইনে ৪ টি করে দরজা দেওয়া হয়েছে।
দ্বিতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন ক্যাটাগরির মানুষ এবার ঘরের সুবিধা পাচ্ছেন। এর মধ্যে পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠি রবিদাস সম্প্রদায়, তৃতীয় লিংগের মানুষ, প্রতিবন্ধী, বিধবা, স্বামী পরিত্যক্তা নারী, বৃদ্ধাদের অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন


এই বিভাগের আরো খবর