• বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১, ০২:৪০ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English

বিরামপুরে চোর সন্দেহে গামছা দিয়ে চোখ বেধে নির্যাতন

এম আই তানিম, বিরামপুর (দিনাজপুর)
প্রকাশ হয়েছে : মঙ্গলবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৯:০০ pm
                             
                                 

দিনাজপুরের বিরামপুরে চোর সন্দেহে ইলেক্ট্রিশিয়ান আরজেত আলী (৩৩) নামক এক যুবককে আটকে রেখে গামছা দিয়ে চোখ বেধে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিরামপুর উপজেলার রতনপুরে অবস্থিত আশা অটো রাইচ মিল এর অফিস কক্ষে এ ঘটণাটি ঘটেছে।

তাকে গামছা দিয়ে বেধে মুখে কাপড় গুজে কাটার প্লাস দিয়ে হাতের দুটি নখ উঠানোর চেষ্টা ও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে নির্যাতন করা হয়েছে বলে স্বজনদের অভিযোগ। গুরুতর আহতাবস্থায় তাকে সোমবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) বিকালে বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এই বিষয়ে মৃত দানেজ উদ্দিনের ছেলে আরমান আলীকে প্রধান আসামি করে ৪ জনের নামে এবং অজ্ঞাতনামা ২/৩ জনের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে বিরামপুর থানায় এজাহার দেওয়া হয়েছে।

আরজেত আলীর সাথে কথা বলে জানা যায়, বেলা ১১টার দিকে অভিযুক্ত আরমান আলী তাকে ফোন করে অফিসে ডাকে। এরপর তাকে কয়েকজন মিলে চোখে গামছা দিয়ে বেধে এলোপাতারী ভাবে মারতে শুরু করে। তাকে মারতে কাটিং প্লাস এবং ভারি লাঠি দিয়ে শারীরিক নির্যাতন করা হয়।

আরজেত আলীর ভাই আলতাফ হোসেন জানান, আমার ভাই আরজেত আলীকে মারধর করছে এমন সংবাদ পেয়ে আমার সাথে সেখানে কয়েকজন কে নিয়ে যায়। সেখানে তারা আমাদের দেখে ক্ষিপ্ত হয়ে এক পর্যায়ে চোরের ভাই এসেছে বলে লোহার রড,হাতুড়িসহ আমাদের হত্যার হুমকি দিলে প্রানের ভয়ে আগাইতে পারিনি।পরে বিরামপুর থানা পুলিশকে জানাইলে তারা সেখান থেকে আরজেত কে উদ্ধার করিয়া চিকিৎসার জন্য বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করাই।
বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এর (আর এম ও) ডাঃ শোভন নিশ্চিত করে জানান, আরজেত আলী সোমবার বিকেলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়। তার শরীরে আঘাতের চিহ্ন আছে। বাম পায়ে আঘাতের কারণে ফুলে গেছে । তার চিকিৎসা চলমান রয়েছে।

বিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো মনিরুজ্জামান জানান, মারধরের অভিযোগটি পুলিশ তদন্ত শুরু করছে। রাইচ মিলের ইলেক্ট্রিক ফিউস চুরি করেছে এমন সন্দেহে তাকে এ মারধর করে। সন্দেহবশত কাউকে আটকে মারধর করা গ্রহণযোগ্য নয়। সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অভিযুক্ত আরমান আলীর সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেন নি।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 3
    Shares


এই বিভাগের আরো খবর