• রবিবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২০, ০৪:৫৫ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English

১১৭০ পাউন্ড জালকে ৬৩০ পাউন্ড জব্দ তালিকায় দেখানোর অভিযোগ নৌ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জের বিরুদ্ধে।

বোরহানউদ্দিনে কোটি টাকার নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল নিয়ে রাতভর নাটক

কাজী আল-আমিন, বোরহানউদ্দিন(ভোলা)
প্রকাশ হয়েছে : মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০ | ৯:৩৪ pm
                             
                                 

ভোলার বোরহানউদ্দিনে কোটি টাকার নিষিদ্ধ কারেন্ট নিয়ে রাতভর নাটকের অভিযোগ হাকিমুদ্দিন নৌ-পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ মোঃ রুহুল আমিনের বিরুদ্ধে। অভিযোগ উঠেছে ১১৭০ পাউন্ড জালকে ৬৩০ পাউন্ড জব্দ তালিকা দেখানোর। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার দিবাগত রাতে উপজেলার হাকিমুদ্দিন নৌ-পুলিশ ফাঁড়িতে। এ ঘটনায় নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল সহ ২ জনকে আটক করে মঙ্গলবার সকালে আদালতে চালান করা হয়। আটকৃতরা হলেন  পিকআপ ড্রাইভার মোঃ রাসেল (২০) ও পিকআপ ভ্যান মালিক মোঃ সোহাগ (২৬)। নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল ব্যবসায়ী মোঃ নুরুন নবী সংবাদ কর্মীদের জানান, ঢাকা থেকে সে বড় বস্তায় লঞ্চযোগে হাকিমুদ্দিন ঘাট দিয়ে ৯ বস্তা  নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল পিকআপ ভ্যানে উঠায়। উঠানোর পরপরই জালগুলো আটক করে হাকিমুদ্দিন নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মোঃ রুহুল আমিন ও সঙ্গীয় ফোর্স। এরপর রাতে ১১৭০ পাউন্ড জাল ফাঁড়ির মধ্যে নিয়ে ওই জাল ৬৩০ পাউন্ড দেখিয়ে বাকী জাল সরিয়ে ৬৩০ পাউন্ড জাল জব্দ তালিকায় দেখায়। নিষিদ্ধ জাল ব্যবসায়ী নুরনবী নিজের ভুল স্বীকার করে জানান, আমি অপরাধী আমার ১১৭০ পাউন্ড জাল জব্দ করা হয়েছে। আমার বিরুদ্ধে মামলাও করা হয়েছে। কিন্তুু তারা ১১৭০ পাউন্ড জালকে ৬৩০ পাউন্ড দেখালো কিভাবে? অভিযোগ পেয়ে সংবাদকর্মীরা সরেজমিনে আটকৃত জাল দেখতে চাইলে ফাঁড়ি ইনচার্জ আটকৃত জাল দেখাতে অপারগতা প্রকাশ করে বলেন, আপনারা আদালত থেকে জাল দেখার অনুমতি নিয়ে আসেন তারপর জাল দেখাবো। পরে সংবাদকর্মীরা  না দেখানোর আইন সম্পর্কে জানতে চাইলে ও নৌ-পুলিশের উপর মহলকে জানালে এক পর্যায়ে জাল দেখাতে বাধ্য হয়। ১১৭০ পাউন্ড জাল ৬৩০ পাউন্ড জব্দ দেখার বিষয়ে জানতে চাইলে ফাঁড়ির আইসি রুহুল আমিন বলেন, আমি যা পেয়েছি তাই জব্দ তালিকায় দেখিয়েছি। কে কি বললো এটা আমার দেখার বিষয় না।  এলাকাবাসী জানান, আটকৃত জালগুলো উপস্থিত জনগনের সামনে জালের হিসাব নিকাশ না করেই ফাঁড়ির মধ্যে দরজা বন্ধ করে তারা নিজেদের মধ্যে জালের হিসাব নিকাশ সম্পন্ন করেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ফাঁড়ির পার্শ্ববর্তী একাধিক ব্যাক্তি জানান, লঞ্চ থেকে নামানোর পর গত দিনের জালের বস্তার সাথে আজকের জালের বস্তার কোন মিল নেই। এলাকাবাসী এ ব্যাপারে উর্ধ্বতন কর্তপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 19
    Shares


এই বিভাগের আরো খবর