• শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫:০৬ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English

মধুপুরে বন বিভাগের জায়গা উদ্ধারে বাধা: বন কর্মকর্তা অবরুদ্ধ !

হাফিজুর রহমান, টাঙ্গাইল
প্রকাশ হয়েছে : মঙ্গলবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১২:১২ am
                             
                                 

টাঙ্গাইলের মধুপুরের বন বিভাগের বেদখল কৃত জায়গায় কলাবাগান কর্তন করে ১ একর জায়গা দখলমুক্ত করায় দোখলা  রেঞ্জে অবস্থিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতিবিজড়িত ডাক বাংলোতে রেঞ্জ কর্মকর্তা আব্দুল আহাদ কে অবরুদ্ধ করার  ঘটনা ঘটেছে।

দোখলা রেঞ্জের রেঞ্জ কর্মকর্তা আব্দুল আহাদ জানান, বন বিভাগের মধুপুর বনের দোখলা রেঞ্জ অফিসের ৫শত গজ পূর্বে অরণখোলা মৌজার সি এস ১৩ দাগের ১ একর জমির  একটি ঔষুধি বাগান ছিলো। সেই ঔষুধি বাগান টি স্থানীয় পেগামারী গ্রামের গারো আদিবাসী গেটিস যেত্রা ও বাসন্তী রেমা জবরদখল করে দীর্ঘদিন ধরে কলা বাগান করে আসছিলো সেই বন বিভাগের রেকর্ডকৃত ১ একর জায়গায় সোমবার(১৪ সেপ্টেম্বর ২০ইং) সকালে আমি ও আমার বনবিভাগের লোকজন নিয়ে গিয়ে জবর দখলকৃত কলা বাগান কেটে দখল মুক্ত করে  রেঞ্জ অফিসের বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিবিজড়িত ডাকবাংলো  তে বিশ্রাম করতে ছিলাম।

এমনসময় বনবিভাগের জমি জবরদখলকারী গারো আদিবাসী গেটিস যেত্রা ও বাসন্তী রেমা সহ স্থানীয় গারো আদিবাসী জন, পালন সহ তাদের বাহামভূক্ত কিছু সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে অতর্কিতভাবে আমিও আমার অফিসের স্টাফ দের  উপর হামলা চা চালায়। এসময় বনজ  গাছের প্রায় ১ হাজার গাছের চারা  ভাঙচুর করে । অফিসের ব্যবহৃত একটি মোটর সাইকেল ভাংচুর করে। আমাকে রুমে তলাবদ্ধ করে রাখে।

আমার অফিসের ৩ জন স্টাফ কে তারা মারপিট করে। এসময় মধুপুর থানায় খবর দেই পরে  মধুপুর থানার অরনখোলা পুলিশ ফাঁড়ি থেকে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।
আহতরা হলেন- লেবার সর্দার জাহাঙ্গী,  বন প্রহরী রফিকুল ইসলাম ও আব্দুল মতিন।
অরনখোলা পুলিশ ফাঁড়ির এপিএসআই আমীরুল ইলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

এঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার প্রস্তুতি চললে বলে  রেঞ্জ কর্মকর্তা আব্দুল আহাদ জানান ।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 2
    Shares


এই বিভাগের আরো খবর