• বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন ২০২১, ০৯:৩৭ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English
শিরোনাম
আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে লক্ষ্মীপুরে জেলা পরিষদের কেক কাটা ও আলোচনা সভা মণিরামপুরের সেরা ষাঁড়ের দাম ১৫ লাখ টাকা বাংলাদেশের টিকা উৎপাদনের সক্ষমতা রয়েছে : প্রধানমন্ত্রী গৌরীপুর আওয়ামীলীগের ৭২ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত বিভিন্ন কর্মসুচীর মধ্যে দিয়ে বাগেরহাটে আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত শ্রীপুর ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগে হতদরিদ্রদের মাঝে নগদ টাকা বিতরণ ফুলবাড়িয়ায় আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত মণিরামপুরে কঠোর লকডাউন: ১৩ দোকানির জরিমানা শাহজাদপুর প্রেসক্লাবের দ্বি-তল ভবন উদ্বোধন করলেন এমপি স্বপন পাঁচ হাসপাতালে দৌড়াদৌড়ি, শ্বাসকষ্টে শিক্ষকের মৃত্যু

মাদারীপুরে অপহরণের তিন দিন পর শিশু উদ্ধার: চার অপহরণকারী গ্রেফতার

ম.ম.হারুন অর রশিদ, মাদারীপুর
প্রকাশ হয়েছে : শনিবার, ২৭ মার্চ ২০২১ | ৭:৫৫ pm
                             
                                 

মাদারীপুরের শিবচর থেকে শিশু রায়হান মুন্সীকে (৫) অপহরণের তিন দিন পর জামালপুর থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। এসময় চার অপহরণকারীকে গ্রেফতার করে পুলিশের সদস্যরা।

শনিবার দুপুরে মাদারীপুর পুলিশ সুপার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এসব তথ্য জানান পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা রাসেল। পরে আদালতের মাধ্যমে তাদের জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

পুলিশ জানান, গত ২৩ মার্চ শিবচর উপজেলার সন্যাসীরচর ইউনিয়নের চরগুপ্তেরকান্দি গ্রামের শাহজাহান মুন্সীর পাঁচ বছর বয়সী ছেলে রায়হায় মুন্সীকে বিস্কুট খাওয়ানোর কথা বলে দোকানে নিয়ে যায় স্থানীয় বিল্লাল মুন্সীসহ কয়েকজন। পরে অনেক খোজা-খুঁজির পরেও না পেয়ে ওই দিন রাতে শিবচর থানায় সাধারণ ডায়েরী করে শাহজাহান মুন্সী। এক পর্যায়ে ২৪ মার্চ শাহজাহান মুন্সীর কাছে দশ হাজার টাকা বিকাশে দিতে বলে ছালাম মুন্সী নামে এক ব্যক্তি।

সেই দিন রাতেই শিবচর থানা নারী ও শিশু দমন আইনে মামলা দায়ের করে। এই ঘটনায় বিকাশে টাকা দেয়া হলে সেই সূত্র ধরে ঢাকার ডিবির একটি চৌকস দলের সাথে শিবচর থানা পুলিশের সহযোগিতায় ২৬ মার্চ রাতে জামালপুর সদরের রেল স্টেশন এলাকার একটি রেস্টুবেন্ট থেকে শিশু রায়হান মুন্সিকে উদ্ধার করে। এসময় চার অপহরণকারীকে গ্রেফতার করা হয়। এদের জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

অপহরণকারীদের বাড়ী একই এলাকায়। তারা সর্ম্পকে শাহজাহান মুন্সী চাচাতো ভাই ও নিকট আত্মীয়। প্রাথমিক পর্যায়ে তারা দোষ স্বীকার করেছেন। মাদারীপুর পুলিশ সুপার,গোলাম মোস্তফা রাসেল বলেন,অপহরনের সঙ্গে জড়িত ৪জনকে আটক করেছি এবং বিকাশে যে টাকা দাবি করা হয়েছিল তার ও প্রমান পেয়েছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন


এই বিভাগের আরো খবর