• বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১১:৪৫ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English

রাজারহাটে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের উপর চড়াওয়ের ঘটনায় থানায় মামলা

শহিদুল ইসলাম, রাজারহাট (কুড়িগ্রাম)
প্রকাশ হয়েছে : বৃহস্পতিবার, ৮ জুলাই ২০২১ | ১০:৪৫ pm
                             
                                 

রাজারহাটের ফরকের হাট বাজারে করোনা বিস্তার রোধ কল্পে দায়িত্বরত অবস্থায় ভ্রাম্যমান আদালতের উপর চড়াওয়ের ঘটনায় বাজার বনিক সমিতির সভাপতি মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু সহ অজ্ঞাতনামা ১৫/২০জনের নামে মামলা হয়েছে। তবে এঘটনায় পুলিশ কাউকে আটক করতে পারেনি।
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদশী সূত্রে জানা গেছে,৭জুলাই বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে উপজেলার উমর মজিদ ইউনিয়নের ফরকের হাট বাজারে করোনা প্রতিরোধ কল্পে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও রাজারহাট উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) আকলিমা বেগম ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করছিলেন। এসময় ফরকের হাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে এক ব্যক্তি অবৈধ স্থাপনা (অস্থায়ী) তৈরী করে চায়ের দোকান পরিচালনা করায় তাকে দোকান উঠিয়ে নেয়ার জন্য বলা হয়। একারণে ফরকের হাট বাজার বনিক সমিতির সভাপতি মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু ঘটনাস্থলে এসে উত্তেজিত হয়ে রাজারহাট থানার কনস্টেবল আব্দুল খালেককে মারতে উদ্যত হয়। তাকে সঙ্গীয় কনস্টেবল রতন কুমার ও শাহাদৎ হোসেন থামানোর চেষ্টা করলে তিনি চিৎকার শুরু করেন। একপর্যায়ে ওই সভাপতির পক্ষে আরো অজ্ঞাত ১৫/২০জন ঘটনাস্থলে এসে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সহ অন্যদের উপর আক্রমন করে। ঘটনাটি উপজেলা ভূমি অফিসের নিরাপত্তা কর্মী নাজমুল হক নাঈম মোবাইল দিয়ে ভিডিও করতে থাকলে মঞ্জু তাকেও মারধর করে তার মোবাইল ফোন কেড়ে নিয়ে মাটিতে ফেলে দেন। একপর্যায়ে অশ্লীল গালিগালাজ করে সরকারি কাজে বাঁধা প্রদান করেন মঞ্জু ও তার লোকজন। ঘটনার সময় পুলিশ তাদের আটকের চেষ্টা করলেও তারা সংখ্যায় বেশি হওয়ায় কাউকে আটক করতে পারেননি বলে জানা যায়। এঘটনায় ৭জুলাই রাতে ওই ভ্রাম্যমান আদালতের প্রসিকিউসন অফিসার ও রাজারহাট থানার এএসআই আব্দুল্লাহ বাদী হয়ে রাজারহাট থানায় মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু সহ অজ্ঞাতনামা ১৫/২০জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন।
তবে এবিষয়ে ফরকের হাট বাজার কমিটির সভাপতি মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু বলেন, আমার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ করা হয়েছে সেগুলো সম্পূর্ণ মিথ্যা। আমাকেই আঘাত করে আহত করা হয়েছে। আমি হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছি।
রাজারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ রাজু সরকার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন,আসামী গ্রেফতারে পুলিশী তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।
এব্যাপারে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও রাজারহাট উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আকলিমা বেগম জানান,আমি থানায় মামলা করেছি । এখন আপডেট জানাতে পারবে থানা।

সংবাদটি শেয়ার করুন


এই বিভাগের আরো খবর