• বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১১:১৮ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English

রাজারহাট রেলওয়ে স্টেশন প্লাটফর্ম পানিতে নিমজ্জিত

শহিদুল ইসলাম, রাজারহাট (কুড়িগ্রাম)
প্রকাশ হয়েছে : বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ৫:৪৪ pm
                             
                                 

ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পরেছে রাজারহাট রেলওয়ে স্টেশন। দীর্ঘদিন ধরে সংস্কারের অভাবে ব্যবহার অনুপযোগী স্টেশনের প্লাটফর্মটি বৃষ্টির পানিতে নিমগ্ন হওয়ায় যাত্রীদের চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।
সরেজমিনে জানা গেছে,বৃটিশ আমলে রাজারহাট রেলওয়ে স্টেশন স্থাপিত হয় এবং স্বাধীনতার পর স্টেশনটি আনুমানিক তিন’শ গজ পশ্চিমে স্থানান্তর ও পূণঃনির্মিত হয়। এরপর থেকে উল্লেখযোগ্য সংস্কার হয়নি রেল স্টেশনটির। বর্তমানে স্টেশন ভবনের বিভিন্ন অংশে ফাটল দেখা দিয়েছে। যাত্রী বিশ্রামাগারের মেঝেতে পানি জমে থাকায় তাও ব্যবহারের অনুপযোগী। দেশ স্বাধীনের পর পূণঃনির্মিত ভবনের সাথে কোন রকম ভাবে স্থাপন করা প্লাটফর্মটির স্থানে পরবর্তী সময়ে পাকা প্লাটফর্ম স্থাপন করার কথা থাকলেও অদ্যাবধি তা হয়নি। সঙ্গত কারনে প্লাটফর্মটি অনেক নিচু হয়ে যাওয়ায় যাত্রীদের ঝুঁকি নিয়ে ট্রেনে উঠা নামা করতে হয়। বিশেষ করে মহিলা যাত্রীরা ট্রেনে উঠা নামায় সামান্য অসতর্ক হলেই যে কোন সময় ঘটতে পারে অনাকাঙ্খিত দূর্ঘটনা। এদিকে সামান্য বৃষ্টি হলেই রেল স্টেশন প্লাটফর্মটি পানিতে নিমজ্জিত হয়। গত কয়েক দিনের ভারী বর্ষনে স্টেশনের চার ধারে পানি জমে কর্দমক্ততার সৃস্টি হয়েছে। ফলে যাত্রীদের দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।
সংশ্লিস্ট সূত্র জানায়,বর্তমানে এই লাইনে কুড়িগ্রাম এক্্রপ্রেস,একটি শাটল ট্রেন ও দু’টি রমনা মেইল চলাচল করে। স্টেশন এলাকার বাসিন্দা জামাল হোসেন জানান,সরকার এই অঞ্চলের রেল যোগাযোগ উন্নয়নে কোটি-কোটি টাকা ব্যয় করছে,অথচ রাজারহাট রেলওয়ে স্টেশনের ভগ্নদশার বিষয়টি কর্তৃপক্ষ দেখছেন না।
রাজারহাট রেলওয়ে ষ্টেশন মাষ্টার (ভারঃ) মাইদুল ইসলাম বলেন,উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে এসব সমস্যা সমাধানে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য অনুরোধ করার পর তারা জানিয়েছেন,স্টেশনের নতুন ভবন ও প্লাটফর্ম নির্মাণের পরিকল্পনা গ্রহন করা হয়েছে,অনুমোদন হয়ে আসলে কাজ শুরু হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 3
    Shares


এই বিভাগের আরো খবর