• মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০৩ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English

রামগঞ্জে দেহলা গ্রামের গুরুত্বপূর্ণ সড়কটির বেহাল দশা

উপজেলা সংবাদদাতা
প্রকাশ হয়েছে : রবিবার, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ৪:৪৩ pm
                             
                                 

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলার ভোলাকোট ইউনিয়নের একটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক আথাকরা বাজার থেকে দেহলা বড় মন্তাজের বাড়ি হয়ে দেহলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত দীর্ঘ ২ কিলোমিটার এই রাস্তাটির দক্ষিণ প্রান্তে আথাকরা উচ্চ বিদ্যালয়,আথাকরা দাখিল মাদ্রাসা ও আথাকরা বাজার রয়েছে।

রাস্তার পশ্চিমে দেহলা বড় জামে মসজিদ এবং মসজিদ সংলগ্ন কওমী মাদ্রাসা ও দেহলা বালিকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং রাস্তার উত্তর প্রান্তে রয়েছে দেহলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। এ দু কিলোমিটার রাস্তার মাঝে ২০০২ সালে সাবেক এলজিআরডি প্রতিমন্ত্রী জিয়াউল হক জিয়া আধাঁ কিলোমিটার পাকা করলে ও বাকি দেড় কিলোমিটার কাচাই রয়ে যায়। পাকা আধা কিলোমিটার ও দীর্ঘ ১৮ বছর যাবত কোন সংস্করণ না করায় তা বিলীন হয়ে গেছে।

এব্যাপারে আজ শনিবার দুপুরে সরজমিন গেলে এলাকাবাসীর পক্ষে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম কোম্পানি, মুরাদ হোসেন, সোলাইমান হোসেন, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন, আবুল কাশেম, রাশেদ আঠিয়া, জাহাঙ্গীর আঠিয়া সহ বেশ কয়েকজন জানান, রাস্তাটি বর্ষাকালে বৃষ্টি হলে এক হাঁটু কাদা জমে। তখন যানবাহন তো দূরের কথা,হেঁটে চলাচলও বিপজ্জনক হয়ে পড়ে। আশপাশের সব রাস্তা পাকা হলেও এ রাস্তাটি পাকা করার কোনো উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে না। নির্বাচন এলে রাজনৈতিক নেতারা রাস্তাটি পাকা করার প্রতিশ্রুতি দিলেও পরে আর পাকা করার উদ্যোগ নেয়া হয় না।

এই সড়কটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ দেহলা গ্রামের লোকদের আথাকরা বাজারে যেতে হলে এই রাস্তাটি পাড়ি দিতে হয়। এ ছাড়া শাহারপাড়া, নাগমুদ,ভোলাকোটের লোকজনকেও এ রাস্তা অতিক্রম করতে হয়। এ রাস্তায় চলাচলের বাধা একটাই-এর বেহাল দশা। দীর্ঘ ২০ বছর অসংখ্য রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ প্রতিশ্রুতি দেওয়ার পরও কাজের কাজ কিছুই হলো না।

মোঃ তামজিদ হোসেন (রুবেল)/রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 10
    Shares


এই বিভাগের আরো খবর