• মঙ্গলবার, ০৩ অগাস্ট ২০২১, ০৭:৪৪ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English
শিরোনাম
শিগগির বাংলাদেশে ‘কোভ্যাক্সিন’র ট্রায়াল চালাতে চায় ভারত সাতক্ষীরায় জুলাই মাসে করোনায় ১৫, উপসর্গে ২০৫ জনের মৃত্যু গোবিন্দগঞ্জ ছিনতাইকৃত মহিষ আক্কেলপুরে উদ্ধার রবিউল এবার পেল সুচিকিৎসার ব্যবস্থা, সমাজসেবা থেকে পেল আর্থিক সহায়তা বোয়ালমারীতে জেলা পরিষদ বানিজ্যিক ভবনের কক্ষ থেকে দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার সুন্দরগঞ্জে টিকা সম্প্রসারণে অবহিতকরণ সভা মাধবপুরে কঠোর নজরদারিতে এসিল্যান্ড অভিযানে ১৩টি মামলায় জরিমানা সেই পরিত্যক্ত ঘরেই মারা গেলেন জনপ্রিয় শিক্ষক যত্রতত্র ফেলা হচ্ছে বর্জ্য, হুমকির মুখে পরিবেশ বকশীগঞ্জে ৩৩৩ ফোন ও খুদে বার্তা পাঠিয়ে খাদ্য সহায়তা পেয়েছেন ১৪০০ পরিবার!

লক্ষ্মীপুরে ইটভাটার চিমনি ভেঙে নিহত-৩ ॥ আহত ১০

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ হয়েছে : রবিবার, ২৩ মে ২০২১ | ৯:৫৪ pm
                             
                                 

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলার ৯নং ভোলাকোট ইউনিয়নে মদিনা ইটভাটার উঁচু চিমনির সাইডওয়াল ভেঙে পড়ে দুই সহোদর সহ ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এসময় অন্তত ১০ জন শ্রমিক আহত হয়েছে। ২৩ মে রবিবার বিকেল ৫টার দিকে উপজেলার মদিনা ব্রিকসে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
রাত সাড়ে ৯টার দিকে মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন ইউএনও তাপ্তি চাকমা। এর আগে খবর পেয়ে ইউএনও, রামগঞ্জ থানার ওসি মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, এ্যাসিল্যান্ড মোঃ মাহবুবর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

এদিকে নিহতদের মরদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার সময় ভাটার অন্য শ্রমিকরা বাঁধা দেয়। এসময় তাঁরা বিক্ষোভ করে ভাটা মালিক আমির হোসেন ডিপজলের বিচার দাবি করেন। তবে ঘটনার পরপরই ডিপজল দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।
নিহতরা হলেন বেলাল হোসেন (৩২) ও তাঁর ভাই ফারুক হোসেন (১৬), রাকিব হোসেন (২২)। তাঁরা জেলার কমলনগর উপজেলার বাসিন্দা। এর মধ্যে রাকিব হোসেন লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ঘটনার সময় ইটভাটার উঁচু চিমনির দেয়াল ধসে পড়ে। এসময় কর্মরত বেলাল ও ফারুকসহ ১০ জন শ্রমিক ধসে পড়া দেয়ালের নিচে চাপা পড়েন। এতে বেলাল ও ফারুক ঘটনাস্থলেই মারা যান। পরে ফায়ার সার্ভিস কর্মীদের সহযোগীতায় আহত শ্রমিক মোঃ রায়হান, জাবেদ হোসেন,মোঃ ফিরোজ, কামরুল হোসেন,সহেল হোসেন,আনোয়ার আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক। ঘটনাস্থল থেকে মরদেহগুলো আনার সময় শ্রমিকরা ভাটা মালিকের বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ করে। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে শ্রমিকরা বিক্ষোভ বন্ধ করে। দুর্ঘটনার পরপরই ভাটা মালিক পালিয়ে গেছে।
অন্যদিকে এ ইটভাটায় ২ বছর আগে একইভাবে চুলার দেয়াল ধসে পড়ে ৫ জন আহত হয়। ভোলাকোট ইউনিয়নেই ১১ টি ইটভাটা রয়েছে। এর অধিকাংশই সঠিক কাগজপত্র নেই। অবৈধভাবে এসব ইটভাটা গড়ে উঠা এবং বন্ধ না করায় সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে দায়ী করেছেন স্থানীয়রা।

রামগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন বলেন, নিহতদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। জেলা প্রশাসক ও ইউএনওসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাটি অবগত রয়েছেন। এ ঘটনায় থানায় এখনো কোন লিখিত অভিযোগ করা হয়নি। উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সিদ্ধান্তে ও লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
রামগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাপ্তি চাকমা বলেন, বিকস ফিল্ডের চিমনি ভেঙে ঘটনাস্থলে ২ ভাই ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও ১জন সহ ৩ জন নিহত হয়েছে। আইনী ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

সংবাদটি শেয়ার করুন


এই বিভাগের আরো খবর