• বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ১১:৩৮ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English

সিংগাইরে চেতনা নাশক আতঙ্ক, দুবৃর্ত্তরা দু’পরিবারকে অজ্ঞান করে লুটে নিল ২ লাখ টাকা

মোঃ সাইফুল ইসলাম তানভীর, সিংগাইর (মানিকগঞ্জ)
প্রকাশ হয়েছে : মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ৬:৪৩ pm
                             
                                 

 মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার সায়েস্তা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ইঞ্জি. মোজাম্মেল হোসেন খানের বাড়িতে চেতনা নাশক খাইয়ে তার ছোট বোনের মৃত্যুর রেশ না কাটতেই আবারো খাবারের সাথে চেতনা নাশক ওষুধ খাওয়ানোর ঘটনা ঘটেছে। গত সোমবার (২১ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে জামির্ত্তা ইউনিয়নে আলী নগর গ্রামে দু’ পরিবারের ১৩ সদস্যকে চেতনা নাশক ওষুধ খাওয়ানো হয়েছে। এতে এক পরিবার থেকেই লুটে নেয়া হয়েছে প্রায় দু’ লাখ টাকা।

অজ্ঞান হওয়া পরিবার সূত্রে জানা গেছে, ওইদিন দুপুরের খাবার খেয়ে আলী নগর গ্রামের সামছুদ্দিন ডিলার (৭৮) ও তার প্রতিবেশি ছকিল উদ্দিন বাড়ির সদস্যরা অজ্ঞান হয়ে পড়েন। রাতে সামছুদ্দিন ডিলারের বাড়ির কলাপসিবল গেটের তালা ভেঁঙ্গে সুকেচ থেকে নগদ ৮৫ ও আলমারি ভেঁঙ্গে ১ লাখ ৪ হাজার টাকা দুবৃর্ত্তরা লুটে নেয়। অপরদিকে ছকিল উদ্দিনের পরিবারের অজ্ঞান হওয়ার বিষয়টি তার ভাই আব্দুল করিম টের পেয়ে রাতে পাহারা দিয়ে মালামাল লুট হওয়া থেকে রেহাই পায়।
জানা গেছে, সামুছুদ্দিন পরিবারের অজ্ঞান হওয়া সদস্যরা হচ্ছেন- গৃহকর্তা ও তার স্ত্রী রাজিয়া খাতুন (৭০), পুত্র লতিফ (৪৫), পুত্রবধূ রিনা আক্তার (৩৮), নাতনী শামিমা (১৬), আয়েশা (১৪) ও নাতি ইব্রাহিম (১১)। এদের মধ্যে রাজিয়া খাতুনের অবস্থা আশংকাজনক। বাকিরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ্য হয়েছেন।

ছকিলউদ্দিনের পরিবারের সদস্যরা হচ্ছেন- গৃহকর্তা ও তার স্ত্রী হেনা বেগম (৫৫), পুত্র দেলোয়ার হোসেন (৪০), পুত্রবধূ ঝর্ণা আক্তার (৩৫), নাতি স্বপন (১৭) ও নাতনী যুথি (১২)। তারাও প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ্য হয়েছেন। অজ্ঞান হওয়া পরিবারদ্বয়ের সদস্যদের দাবি, হলুদের গুড়ার মধ্যে সাদা পাউডার জাতীয় কেমিক্যাল দেখা গেছে।
এ ব্যাপারে শান্তিপুর বাঘুলি তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মোঃ লুৎফর রহমান বলেন, এ ধরনের অভিযোগ নিয়ে কেউ আসেনি। আপনার মুখেই প্রথম শুনলাম।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 7
    Shares


এই বিভাগের আরো খবর