• বুধবার, ১২ মে ২০২১, ০৭:৫৪ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English

সিংগাইর উপজেলা পরিষদের বাউন্ডারির ভেতর অকার্যকর হাত ধোঁয়ার বেসিন

মোঃ সাইফুল ইসলাম তানভীর, সিংগাইর (মানিকগঞ্জ)
প্রকাশ হয়েছে : সোমবার, ৩ মে ২০২১ | ১২:২৯ am
                             
                                 

মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলা পরিষদের বাউন্ডারির ভেতর করোনা সংক্রমণের মধ্যেও সরকারিভাবে নির্মিত হাত ধোঁয়ার বেসিন অকার্যকর হয়ে পড়ে আছে। বেসিনটিতে নেই পানি, সাবানসহ হাত ধোঁয়া মোছার কোনো ব্যবস্থা। উপজেলা পরিষদে সেবা নিতে আসা লোকজন বেসিনটির এ অবস্থা দেখে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন। এছাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় দু’তলায় উঠতে সিঁড়ির নিচের হাত ধোঁয়ার বেসিনটির নেই কোনো অস্তিত্ব।

উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অফিস সূত্রে জানা গেছে, করোনা সংক্রমণরোধে হাত ধোঁয়ার জন্য উপজেলা পরিষদের মূল ফটকের ভেতরে, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লক্সে ভবনের সামনে, থানার ভেতরে ও জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অফিসের সামনে বেসিন নির্মাণ করা হয়। সরকারিভাবে টেন্ডারের মাধ্যমে প্রতিটির ব্যয় ধরা হয় ৩০ হাজার টাকা করে। কিছুদিন যেতেই দু’টি বেসিন সঠিক তদারকির অভাবে অকেজো হয়ে পড়ে। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়েও স্বাস্থ্য বিধি রক্ষায় সচল করা হয়নি। দেখার যেন কেউ নেই।

এদিকে থানার ভেতরেরটা ও জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অফিসের বেসিন দু’টি সচল করা হলেও উপজেলা পরিষদ ও স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে স্থাপিত দু’টি গুরুত্বপূর্ণ বেসিনই রয়েছে অকেজো। নেই হাত ধোঁয়ার কোন উপকরণ। বেসিনের মধ্যেই জন্মেছে আগাছা। উপজেলা পরিষদে সেবা নিতে আসা বায়রা ইউনিয়নের বাড্ডা গ্রামের তসলিমউদ্দিন, চারিগ্রামের মিজানুর রহমান, ওয়াইজনগর গ্রামের আব্দুল হক, বাস্তা গ্রামের ইসমাইল হোসেন খানসহ অনেকে হাত ধুতে গিয়ে ফেরত যান। এসময় ভুক্তভোগীরা বিষয়টি সাংবাদিকদেরকে সংবাদ মাধ্যমে তুলে ধরার অনুরোধ জানান।

উপজেলা জনস্বাস্থ্য উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. রিফাতুল ইসলাম বলেন, প্রাথমিকভাবে বেসিন চালুর ক্ষেত্রে যা যা করনীয় তা করে দেয়া হয়েছে। পরবর্তী সময়ে রক্ষণাবেক্ষনের দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট অফিসের।

এ ব্যাপারে সিংগাইর উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুনা লায়লা বলেন, আমি জসস্বাস্থ্য কে বলে দেব পানির লাইনটি ঠিক করে দেয়ার জন্য।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 10
    Shares


এই বিভাগের আরো খবর