• সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ০১:৫৬ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English
শিরোনাম
লকডাউনের নবম দিনে সাতক্ষীরায় পুলিশের কঠোর অবস্থান ২১ জুন লক্ষ্মীপুর-২ উপ-নির্বাচন: আওয়ামী লীগের বিরামহীন প্রচারণা প্যাঁচার অভয়াশ্রম সাগরদিঘি শাহজাদপুরে ডুবো রাস্তায় বদলে গেছে লাখো মানুষের জীবনমান লক্ষ্মীপুরে পল্লী বিদ্যুৎ কর্মচারীর মৃত্যু: স্বজনদের দাবি পরিকল্পিত হত্যা সুন্দরগঞ্জে ৬ জুয়াড়ি গ্রেপ্তার শরণখোলায় ভূমি অধিগ্রহনে ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়ি এসে চেক দিলেন জেলা প্রশাসক শত বছরের পুরনো রাস্তা বন্ধ করে অন্যের জমি দখল করে রাস্তা নির্মাণের অভিযোগ বাগেরহাটে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা (অনুর্ধ্ব-১৭) গোল্ডকাপ ফুডবল টুনামেন্টের উদ্বোধন মাগুরার শ্রীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১ আহত-৩

সুনামগঞ্জে পল্লী বিদ্যুতের লোডশেডিং ও অনিয়ম এর প্রতিবাদে মানববন্ধন

মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া, হাওরাঞ্চল, সুনামগঞ্জ
প্রকাশ হয়েছে : বৃহস্পতিবার, ১০ জুন ২০২১ | ৭:০৬ pm
                             
                                 

সুনামগঞ্জে পল্লী বিদ্যুতের লোডশেডিং ও নানান অনিয়ম-দূর্নীতির কারণে অতিষ্ট হয়ে উঠেছে গ্রাহকরা। প্রতিদিন ৮ থেকে ১০বার লোডশেডিং হয়। তারপর মাস শেষ হতে না হতেই ভুতুড়ে বিল এসে হাজির হয়। বিদ্যুৎ ব্যবহার না করেও গ্রাহকদেরকে মাস শেষে গুনতে হচ্ছে হাজার হাজার টাকা। এই ভুতুড়ে বিলের অত্যাচার দিনদিন বেড়েই চলেছে। এছাড়াও আরো নানান অনিয়ম ও দূর্নীতির কারণে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে গ্রাহকরা। কিন্তু এসব সমস্যা দেখার কেউ নেই। তাই বিদ্যুৎ বিভাগের অনিয়ম ও দূর্নীতির প্রতিবাদে জেলার বিভিন্ন উপজেলায় মানববন্ধন করছে ভোক্তভোগীরা।
এব্যাপারে ভোক্তভোগী গ্রাহকরা জানান- বিদ্যুৎ বিভাগের মিটার রিডারগণ তাদের দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় না গিয়ে অফিসে বসেই তাদের মনগড়া ভাবে বিদ্যুৎ বিল তৈরি করে গ্রাহকদের দিয়ে যাচ্ছে। তাদের এই অনিয়ম ও দূর্নীতির প্রতিবাদ করলে মামলার ভয় দেখায়। এছাড়া ট্রান্সফরমার ও বাসা-বাড়ির মিটার নষ্ট হলে গ্রাহকরা অফিসে টাকা জমা দিয়েও মাসের পর মাস হয়রানীর স্বীকার হতে হচ্ছে। আর নতুন মিটারের জন্য আবেদন করলে অফিসে মিটার নাই বলে জানিয়ে দেওয়া হয়। বিদ্যুৎ বিভাগের এই অনিয়ম ও দূর্নীতি হর হামেশাই ঘটছে।
এব্যাপারে তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট বাজারের কাপড়পট্টিতে অবস্থিত দোকান মালিক মোজাম্মেল আলম বলেন- করোনার কারণে আমার দোকান সব সময় বন্ধ থাকে। শুধু ময়লা পরিস্কার করার জন্য মাসে ১দিন খোলা হয়। বাকি সময় বন্ধ থাকে। তাই বিদ্যুৎ ব্যবহার করা হয়না। তারপরও আমার নামে এক মাসের বিদ্যুৎ বিল এসেছে ৬হাজার টাকা। এই বাজারে কাপড় ব্যবসায়ী সালাউদ্দিন, কবির ভূঁইয়া, সুলতান মাহমুদসহ আরো অনেকেই বলেন- আমরা যে পরিমান বিদ্যুৎ ব্যবহার করি তার চেয়ে দ্বিগুন বিল আসে। এব্যাপারে বারবার অভিযোগ করেও কোন লাভ হয়না। বরং এই অত্যাচার দিনদিন বেড়েই চলেছে। তাই এব্যাপারে সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষসহ প্রধানমন্ত্রী আন্তরিক সহযোগীতা কামনা করেছেন ভোক্তভোগী গ্রাহকরা।
পল্লী বিদ্যুতের এই অনিয়ম ও দূর্নীতির প্রতিবাদে গতকাল বুধবার (৯ জুন) বিকেলে ছাতক বিদ্যুৎ বিভাগের কার্যালয়ের সামনে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন করেছে ব্যবসায়ী ও বিভিন্ন শ্রেণী পেশার ভোক্তভোগীরা। পল্লী বিদ্যুতের নিবার্হী প্রকৌশলীর অপসারণ দাবী করে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন- ইউপি সদস্য সালেহ আহমদ, ব্যবসায়ী কামরুজ্জামান, আব্দুল হাই লায়েক, গ্রাহক আলী হোসেন, মিজানুর রহমান মিজান, সাউউর রহমান লাল, সোলেমান মিয়া, মিলাদ হোসেন, মমিন মিয়া, সেলিম মিয়া, পাবেল মিয়া, রাসেল মিয়া, শাহিন মিয়া প্রমুখ।

সংবাদটি শেয়ার করুন


এই বিভাগের আরো খবর