• মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৩:৩৯ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English

পাবনায় আওয়ামীলীগ কর্মীর গোডাউনে ৪৯৭ বস্তা সরকারি চাল

আলাউদ্দিন হোসেন, পাবনা
প্রকাশ হয়েছে : সোমবার, ৯ নভেম্বর ২০২০ | ৮:৪৯ pm
                             
                                 

পাবনা বেড়া উপজেলার চাকলা ইউনিয়নের আওয়ামী কর্মী ও সরকারি খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ডিলার মাসুদ রানা লিখিত আবেদন ছাড়াই তার ব্যক্তিগত গোডাউনে অসৎ উদ্দ্যেশে সরকারি ৪৯৭ বস্তা চাল মজুদ রেখেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

রোববার (৮ অক্টেবর) সন্ধ্যায় এমন অভিযোগে উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভুমি) মাহবুব হাসান ও উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা শিরিন আক্তার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে, বেড়া উপজেলার চাকলা ইউনিয়নের বাগজান গ্রামের সাবেক কাদের মেম্বর এর ছেলে আওয়ামী কর্মি মাসুদ রানা সরকারি খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির একজন ডিলার।

উপজেলা কর্তৃক নির্ধারিত স্থান হিসেবে সরকারি চাউল রাখার কথা চাকলা ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের কুশিয়ারা বাজারের ছোলাইমানের ঘরে। কিন্তু নির্ধারিত স্থান পরিবর্তন করে অসৎ উদ্দ্যেশে বাগজান ৮ নং ওয়ার্ডের মোতালেব চৌকিদারের বাড়ি সংলগ্ন তাঁর ব্যাক্তিগত গুদামে ৪৯৭ বস্তা চাউল মুজুদ করেন। এ বিষয়ে লির্খিত কোন আবেদন না করেই নিজের ইচ্ছেমত অন্য স্থানে চাউল মুজুদ করেন মাসুদ রানা। এ সংক্রান্ত গোপন সংবাদে উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভুমি) মাহবুব হাসান, খাদ্য কর্মকর্তা শিরীন আক্তার সরেজমিনে গিয়ে তার সত্যতা পান। এই চাল দরিদ্র মানুষের মধ্যে ১০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করার কথা ছিল।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন এলাকাবাসী জানান, মাসুদ এলাকায় প্রভাব খাঁটিয়ে সুদের রমরমা ব্যাবসা করছে দীর্ঘদিন। তার সুদের টাকা না দিতে পেরে এলাকা ছেড়েছেন অসহায় অনেকেই। এমনকি যে ঘরে সরকারি চাউল মুজুদ করেছিল সেই ঘর পানি উন্নয়ন বোর্ডের জায়গা দখল করে ব্যাক্তিগত ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করছেন। এমন কি রানা নিজেকে অনেক সময় মিডিয়ার লোক দাবি করে বিভিন্ন অপকর্ম করে থাকে। অবৈধ ভাবে পানি উন্নয়ন বোর্ডের জায়গা দখলের প্রেক্ষিতে এলাকাবাসী তার অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের জন্য উপজেলা প্রশাসন ও পানি উন্নয়ন বোর্ডে বরাবর লিখিত অভিযোগও দিয়েছেন বলে জানান এলাকাবাসী।

এ ব্যাপারে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি ডিলার ও আওয়ামীলীগ কর্মি মাসুদ রানা মোবাইলে জানান, স্থান পরির্বতনের জন্য উপজেলা খাদ্য অধিদপ্তর বরাবর দরখাস্ত করেছি। বিষয়টি অফিসের অবহেলায় এখনও অনুমোদন পাইনি।

বেড়ার ইউএনও আসিফ আনাম সিদ্দিকী বলেন,ডিলার মাসুদের ব্যাপারে অভিযোগ পাওয়ার পরেই এসিল্যান্ড সেখানে পরিদর্শন করেছেন এবং এ অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া গেছে। যেখানে তার অনুমোদিত সরকারি চাল রাখার সর্ত ভঙ্গ করে অন্য যায়গায় চাল রাখার দায়ে খাদ্যবা›ন্ধব কর্মসুচির নিতিমালা অনুযায়ী সে যদি সর্ত ভঙ্গ করে সে বিষয়ে আমরা প্রশাসনিক পদক্ষেপ গ্রহণ করব। স্থান পরিবর্তনরে জন্য সে কোন লিখিত আবেদন করেনি বলেও তিনি জানান।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 8
    Shares


এই বিভাগের আরো খবর