• শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০, ০২:৪৫ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English

সুন্দরগঞ্জে উপজেলা দিবস পালিত

আক্তারবানু ইতি, সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা)
প্রকাশ হয়েছে : শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০ | ৭:২৬ pm
                             
                                 

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলা জাতীয় পার্টি ও সহযোগী সংগঠন সমূহের উদ্যোগে বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে ‘উপজেলা দিবস’ পালিত হয়েছে।
এ উপলক্ষে শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) সকালে বিভিন্ন ব্যানার, প্যানা ও ফেষ্টুনে সজ্জিত একটি বিশাল র‌্যালী পৌরশহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে কাঁঠালতলী মোড়ে আলোচনা সভানুষ্ঠিত হয়।

এতে বক্তব্য রাখেন উপজেলা জাপার সহ-সভাপতি আনছার আলী সরদার, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান মন্ডল, পৌর জাপার সভাপতি আব্দুর রশিদ সরকার ডাবলু, উপজেলা জাতীয় যুব সংহতির আহ্বায়ক সাইদুর রহমান, বেলকা ইউনিয়ন জাপার আহ্বায়ক রেজাউল ইসলাম রানা, কৃষক পার্টির নেতা রফিকুল ইসলাম, উপজেলা জাতীয় মহিলা পার্টির নেতা আক্তারবানু ইতি, জুলহালিফা আলমসহ জাপা ও তার অন্যান্য সহযোগি সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ। এসময় বক্তারা বলেন- ‘দেশের শ্রেষ্ঠ সংস্কারক, উন্নয়ন ও সুশাসনের রুপকার সাবেক রাষ্ট্রপতি, জাপার প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রয়াত পল্লীবন্ধু আলহাজ্ব হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদ ঘুণেধরা প্রাগৈতিহাসিক প্রশাসনিক ব্যবস্থাকে ভেঙ্গে আধুনিক রাষ্ট্রের সময়োপযোগী উপজেলা ব্যবস্থার প্রবর্তন করেন’।

এ বক্তব্যে সংহতি রেখে আক্তারবানু ইতি নিজের রচিত ক্ষুদ্র ছড়া কেটে বলেন-‘এরশাদ দিয়েছেন উপজেলা-তাইতো দেশে আজ উন্নয়নে উজালা, পল্লীর সব উপজেলায়-এরশাদ তোমায় দেখা যায়, উপজেলা থেকে জেলা-এরশাদ তোমায় যায়না ভোলা’। পরে বক্তব্যে বলেন, স্বাধীনতা পরবর্তীতে সু-দীর্ঘ ৮ বছর ৯ মাস ১৩ দিনের শাসনামলে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মরহুম হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদ গ্রামগঞ্জেও শহরের মতোই উন্নয়ন ঘটাতে উপজেলা বাস্তবায়নের মাধ্যমে ঐতিহাসিক পটভূমি রচিত করেন। এর বিরোধিতা করলেও পরবর্তীতে ক্ষমতায় আসা সরকারগুলো অবশেষে এ শাসন ব্যবস্থাকেই বাস্তবায়ন করছে। যার ফলশ্রুতিতে আজ এ দেশের মানুষের মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 7
    Shares


এই বিভাগের আরো খবর