• বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ১২:৫২ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English
শিরোনাম
বোয়ালমারীর বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ গোলাম ছরোয়ার মৃধা আর নেই ইচ্ছে মত আসেন চসিকের বর্জ্য সংগ্রহে ডোর টু ডোর প্রকল্পের পরিচ্ছন্নকর্মীরা বন্ধের পথে চট্টগ্রাম বিভাগের ১০ হাজার কেজি স্কুল সড়ক দূর্ঘটনায় লক্ষ্মীপুর জেলা ছাত্রলীগ সভাপতির মায়ের মৃত্যু তাহিরপুরে বিজিবি ও এলাকাবাসীর মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, নারীসহ আহত ১০ কেশবপুরে তৃণমূল সাংবাদিক দলের ত্রৈমাসিক সমন্বয় সভা চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে ও রয়েছে বিনোদনের ব‍্যবস্হা দেবহাটায় পানি ফল চাষে সফলতা, সম্ভাবনাময় কৃষিখাত চট্টগ্রামে ১৯১৩ মণ্ডপে দুর্গোৎসবে ১০টি বিশেষ নির্দেশনা আক্কেলপুরে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে যুবকের মৃত্যু

সুন্দরগঞ্জে কাঠের সাঁকো ভেঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

আক্তারবানু ইতি, সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা)
প্রকাশ হয়েছে : বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ৫:৫৭ pm
                             
                                 

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার তারাপুর ইউনিয়নের খোর্দ্দা-লাটশালার সমন্বিত চরে তিস্তার শাখা নদী (বুড়াইল নদী)’র উপরে নির্মিত কাঠের সাঁকো ভেঙ্গে যাওয়ায় যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। এতে ভোগান্তিতে রয়েছেন হাজার-হাজার পথচারী।
স্থানীয়রা জানান, চলতি বছরের তৃতীয় দফা বন্যার পানির খড়স্রোতে উজান থেকে ভেসে আসা কচুরি পানা ও পানির চাপের মুখে খোর্দ্দা চরের সঙ্গে ও লাটশালার চরের সংযোগ কাঠের সাঁকো ভেঙ্গে গিয়ে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এ পথে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা সদর তথা পৌর শহর থেকে কুড়িগ্রামের উলিপুর ও চিলমারী উপজেলা সদরের সঙ্গে যোগযোগ রক্ষা করায় প্রত্যহ ব্যবসা-বাণিজ্য, চিকিৎসা, শিক্ষা, হাট-বাজারসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে হাজার-হাজার মানুষের যাতায়াত করেন। সম্প্রতি সাকোঁটি ভেঙ্গে যাওয়ায় এসব মানুষজন যোগাযোগ রক্ষায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন। দীর্ঘদিন ধরে এ পথে আধুনিক প্রক্রিয়ায় কোন ব্রীজ নির্মাণ বা যোগাযোগ রক্ষাকারী সড়কের উন্নয়ন (সংস্কার) না হওয়ায় ইউনিয়ন পরিষদ ও এলাকাবাসীর উদ্যোগে রাস্তা ও কাঁঠের সাঁকো নির্মাণ অতঃপর সংস্কার হয়ে থাকে। চর খোর্দ্দা ও লাটশালার চরে বেক্সিমকো কোম্পানির নির্মাণাধীন পাওয়ার প্লান্ট প্রকল্পের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরাও যাতায়াত করেন এ পথে। ফলে জনগুরুত্বপূর্ণ এ রাস্তার উন্নয়নে কয়েক বছর আগে পাওয়ার প্লান্ট প্রকল্পের অধীনে খোর্দ্দা ও লাটশালা গ্রামে ২.৫ কিলোমিটার রাস্তা ও উক্ত বুড়াইল নদীর উপর কাঠের সাঁকো সংস্কার করা হয়। এত পথচারীসহ চরবাসী জন-জীবন যাত্রার মান বেড়ে যায়। চরের বাসিন্দা আবুল কালাম আজাদ, অলম মিয়া, আব্দুল গফফার, টেংগারু, আঃ রাজ্জাক, শুকুর আলী, ছক্কু মিয়া, হায়দার আলী জানান, জরুরী ভিত্তিতে এ রাস্তার সার্বিক উন্নয়ন ও ব্রীজ নির্মাণের প্রয়োজন রয়েছে।
ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম জানান, প্রতি বছর সড়ক ও সাঁকো মেরামতে ইউনিয়ন পরিষদসহ নিজস্ব সহযোগিতায় প্রদানের মাধ্যমে এ পথে যাতায়াতের ব্যবস্থা করে থাকি। এভারেও তা করা হয়েছিল। কিন্তু, বন্যার পানিতে ভেসে আসা কচুরি পানা ও পানির ¯্রােতে সাঁকোটি ভেঙ্গে যায়। ফলে হাজার-হাজার মানুষ দূর্ভোগে পড়েছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 18
    Shares


এই বিভাগের আরো খবর