• শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ০৪:০০ পূর্বাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English

শিক্ষা কার্যক্রম ব্যহত

রাজারহাটে সরকারি বিদ্যালয়ের জমি বেদখল

শহিদুল ইসলাম, রাজারহাট (কুড়িগ্রাম)
প্রকাশ হয়েছে : শনিবার, ১০ অক্টোবর ২০২০ | ৬:৫৩ pm
                             
                                 

রাজারহাটের একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জমি ব্যবসায়িরা দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ দখলে রাখায় শিক্ষা কার্যক্রম ব্যহত হচ্ছে।
জানা গেছে,উপজেলার ঘড়িযালডাঁঙ্গা ইউনিয়নের সিঙ্গারডাবরীহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি ১৯২৪ইং সনে প্রতিষ্ঠিত হয়। এলাকার আসাদুল হক জানান,আমার দাদা মৃত ধনমামুদের দানকৃত ৭০শতক এবং এলাকার মৃত আফান উল্লাহ’র দেয়া ২২শতক মোট ৯২শতক জমির উপর সিঙ্গারডাবরীহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি স্থাপিত। এলাকাবাসী ও শিক্ষার্থী অভিভাবকগণ অভিযোগ করেন,বিদ্যালয়টি স্থাপনের সময় পুরো ৯২শতক জমিই বিদ্যালয়ের দখলে থাকলেও ধীরে ধীরে বিদ্যালয়টির পূবর্ দিকে উত্তর-দক্ষিণাংশের প্রায় ২০শতক জমি বেদখল হয়ে যায়। বিদ্যালয়টি সিঙ্গারডাবরীহাট বাজার সংলগ্ন হওয়ার সুবাদে বর্তমানে ১৮/২০জন ব্যবসায়ী স্থাপনা গড়ে তুলে বিদ্যালয়ের জমিতে ব্যবসা-বাণিজ্য করছেন। ফলে বিদ্যালয়ের মাঠ সংকুচিত হওয়ায় শিক্ষার্থীদের চলাফেরা ও চিত্তবিনোদন বন্ধের উপক্রম হয়েছে। ভেঁঙ্গে পড়েছে বিদ্যালয়ের প্রাশসনিক কাঠামো। ব্যহত হচ্ছে শিক্ষা কার্যক্রম।
অবৈধ দখলদার ব্যবসায়ি সিন্ধু রায় বলেন,আগে এই জায়গা ব্যবহারের জন্য সিঙ্গারডাবরীহাট দ্বি-মূখী উচ্চ বিদ্যালয় ভাড়া আদায় করতো। ১০/১২বছর পূর্বে প্রাথমিক বিদ্যালয় জমি জরিপের পর এই দোকান গুলোর জায়গা তাদের বলে নিশ্চিত করার পর অনেকদিন প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির লোকজন বিদ্যালয়ের অনুষ্ঠানের জন্য টাকা নিত। কয়েক বছর ধরে দিতে হচ্ছে না। একই কথা বলেন,অন্য দখলদারাও।
বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আলহাজ¦ উমর আলী জানান,যারা অবৈধ ভাবে বিদ্যালয়ের জমি দখল করে আছেন,তাদের কাছ থেকে কোন দোকান ভাড়া নেয়া হয় না।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ছোলায়মান মিঞা বলেন,বিদ্যালয়টির সীমানা নির্ধারনের জন্য সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবর চিঠি ইস্যু করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  • 4
    Shares


এই বিভাগের আরো খবর